আজ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

আম উৎপানের শীর্ষে উত্তরাঞ্চল ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে আম চাষ

 

মোঃ ফিরোজ হোসাইন
নওগাঁ প্রতিনিধিঃ

আমশিল্পের অগ্রগতি ও টেকসই করে বাঁচিয়ে রাখতে দেশের শীর্ষ আম উৎপাদনকারী জেলা নওগাঁর সাপাহার, পোরশা ও নিয়ামতপুর এলাকায় সর্বাধুনিক আম সংরক্ষাণাগার বা বড় ধরনের জুস-জেলির কারখানাসহ আম গবেষণাকেন্দ্র এবং বৃহৎ পাইকারি বাজার স্থাপনের দাবি জেলাবাসীর। এর মধ্যেই আম উৎপাদনকারী জেলাগুলোর মধ্যে দেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জকে ছাড়িয়ে শীর্ষস্থানে অবস্থান করছে নওগাঁ জেলার সাপাহার, পোরশা ও নিয়ামতপুর আত্রাই এলাকাসহ জেলার অন্যান্য উপজেলাগুলো।

এক জরীপে দেখা গেছে, চলতি বছরে আমের সিজনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ হতে ২ লাখ মেট্রিকটন আম ও রাজশাহী জেলা হতে ১ লাখ মেট্রিকটন আম উৎপন্ন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেমতে ওই জেলাগুলো থেকে মোট ৩ লাখ মেটিকটন আম দেশের বিভিন্ন স্থানসহ বিদেশেও রপ্তানি করা হবে। অপরদিকে শুধু নওগাঁ জেলা থেকে এবারে ৩ লাখ মেট্রিকটন আম বিদেশসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠানোর সম্ভাবনা রয়েছে বলে সাপাহারে অনুষ্ঠিত আমচাষি ও আম ব্যবসায়ীদের এক সভায় নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মান্নান মিয়া জানিয়েছিলেন। সে হিসেবে আমের রাজধানী না বললেও নওগাঁকে বাণিজ্যিক আমের রাজধানী বলা যেতে পারে বলেও তিনি তার মতামত ব্যাক্ত করেন।

বর্তমানে সাপাহার, পোরশা ও নিয়ামতপুর এলাকায় প্রায় ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে আমবাগান রয়েছে। নওগাঁ জেলায় প্রতিবছর পাল্লা দিয়ে প্রতিটি উপজেলায় ২ থেকে ৩ হাজার হেক্টোর জমিতে নতুন নতুন আমের বাগান গড়ে উঠছে বলে কৃষি দপ্তর থেকে জানা গেছে। আগামী ৫ বছরের মধ্যে এসব এলাকায় আম চাষাবাদ ছাড়া আর কোনো ফসল চাষাবাদের জমি হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না বলে অভিজ্ঞমহল ধারণা করছেন।

আবহাওয়া অনুকূলে ও বাজার ভালো থাকলে শুধু নওগাঁ জেলা থেকেই এ বছর আড়াই থেকে তিন শ কোটি টাকার আম বাণিজ্য হতে পারে বলেও কৃষি দপ্তর, আমচাষি ও আম ব্যবসায়ীগণ জানিয়েছেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ