আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ ইং

হত্যা মামলা প্রত্যাহার না করায় ৩ জনকে কুপিয়ে জখম

সাভার প্রতিনিধি :

ঢাকার সাভারে হত্যা মামলা প্রত্যাহার না করায় আসামি পক্ষের হামলায় মামলার বাদীর বড়ভাই এবং মামলার সাক্ষীসহ ৩ জন আহত হয়েছেন।

তাদের গুরুতর আহত অবস্থায় সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার দত্তপাড়া এলাকার আমিন মডেল টাউনের একটি রেস্টুরেন্টের ভেতর তাদের উপর এই হামলা চালানো হয়।

আহত তিনজন হলেন, বিরুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি মো জাবেদ হোসেন (৪০) এবং আতিক (২৮) এবং আমির । এদের মধ্যে জাবেদের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় ওই হত্যা মামলার বাদী ও আহতের ছোটভাই মো. আকতার হোসেন বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

অভিযুক্তরা হলেন, সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়ননের মো. মোশারফ করিম অপু (২৭), মো. আলাউদ্দিন (৩৫), মো. জাকির হোসেন (২৫), মো. মুলামদী মন্ডল (৫০), মো. আব্বাস (২৮), মো. সোহেল (৩৩), মো. শান্ত (২৪) ও মো. জীবন (২৬)।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের একটি হত্যা মামলার প্রতক্ষ্যদর্শী সাক্ষী ছিলেন আহত জাবেদ হোসেন। উক্ত মামলার অভিযুক্ত আসামী মোশারফ করিম অপু, মো. আলাউদ্দিন ও মো. জাকির হোসেন দীর্ঘদিন যাবত মামলাটি আদালত থেকে প্রত্যাহারের জন্য বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ ও হুমকি প্রদান করে আসছিলেন।

কিন্তু মামলা প্রত্যাহার না করায় উক্ত আসামীরা সহ তাদের সহযোগী মুলামদী মন্ডল, মো. আব্বাস, মো. সোহেল, মো. শান্ত ও মো. জীবন একত্র হয়ে বৃহস্পতিবার (৮ জুন) সন্ধ্যায় সাভারের আমীন মডেল টাউনে অবস্থিত আফটাউন নামক একটি রেস্টুরেন্টে খাওয়ার সময় আহত জাবেদ হোসেন এবং তার সহযোগীদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এসময় অভিযুক্ত মুলামদী মন্ডল চাপাতি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে আহত জাবেদের উপর আঘাত করলে তিনি তা হাত দিয়ে ফিরাতে গেলে দুই হাতের আংগুল ও কবজিতে মারাত্মক জখম হয় এবং ডানহাতের বৃদ্ধাঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

এসময় আরেক অভিযুক্ত মোশারফ করিম অপু ধারালো ছুরি দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে এবং তার বাম পায়ের রগ কেটে ফেলে। এসময় জাবেদকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে আতিক নামে তার এক ভাতিজাকেও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দেয় হামলাকারীরা।

পরে এদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা হুমকি দিয়ে সেখান থেকে সটকে পড়ে।

এ ব্যাপারে হামলার স্বীকার বিরুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মন্ডল বলেন, গতকাল রাতে বিরুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি জাবেদসহ আমরা কয়েকজন রেস্টুরেন্টে খেতে গেলে স্থানীয় শীর্ষ সন্ত্রাসী ও হত্যাসহ একাধিক মামলা আসামী মুলামদীর নেতৃত্ব একদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আমাদের উপর হামলা চালায়, এসময় আমি অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেও জাবেদ ও আতিক নামে আরেকজন সহযোগীকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, এঘটনায় আহতের ভাই বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আমরা আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ