আজ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে এপ্রিল, ২০২৪ ইং

মোবাইল চুরি নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ নিহত ১, আটক ২

সাভার প্রতিনিধি :

ঢাকার সাভারের আড়াপাড়া এলাকায় মোবাইল নিয়ে দুই পক্ষের দফায় সংঘর্ষে ১ যুবক নিহত হয়েছে। গতকাল রাতে একটি মোবাইল চুরি হয়।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকের সংঘর্ষে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।
নিহত যুবকের নাম আকাশ মৃধা(২৫) সে কুষ্টিয়ার কুমারখালি থানার ভালুকাপাড়া এলাকার আব্দুল হালিম মৃধার ছেলে ও পেশায় বাসের হেলপার। সে বাবা-মা নিয়ে আড়াপাড়া এলাকায় বসবাস করতেন।

গতরাতে সোমবার রাতে সাভার পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের আড়াপাড়া জব্বর মসজিদ এলাকায় এক বাসায় একটি অনুষ্ঠান থেকে মোবাইলটি চুরি হয়। মোবাইলটি স্থানীয় জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলের। জাহাঙ্গীর হোসেন মোবাইল মোবাইল চুরির অভিযোগ এনে দুই যুবককে মারধর করে। ওই সময় উপস্থিত যুবকদের মধ্যে দুটি গ্রুপের সৃষ্টি হয় এবং ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। পরে স্থানীয়রা পুলিশে খরব দিলে উভয় পক্ষ পুলিশের উপস্থিতি টের পরে সটকে পরে। সকাল থেকে আবারও ছুড়ি,দা ও লাঠি উভয় পক্ষ দফায় দফায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের লোকজনই আহত হয়।

নিহত আকাশের পিতা হামিল মৃধা বলেন, অনুষ্ঠান থেকে নয়ন ও প্রান্ত নামে দুই যুবক কে মোবাইল চুরির অজুহাতে প্রথমে মারধর করে জাহাঙ্গীর ও তার স্ত্রী। পরবর্তীতে ওখানে দুটি গ্রুপের সৃষ্টি হয় এবং ধস্তা ধস্তি হয়। এক পর্যায়ে সবাই চলে যায়। সকালে জাহাঙ্গীরের শ্যালক মামুনের নেতৃত্বে ২০/ ২৫ জন যুবক মঙ্গলবার সকালে আমার ছেলেকে মারধর করে। কারন আমার ছেলে অন্য গ্রুপের। আমার ছেলেকে মারধরের প্রতিবাদ করে আকাশ।  ওরা আকাশকে কুপিয়ে মেরে ফেললো। মঙ্গলবার বিকেল ৩ টার দিকে আকাশের বুকে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায় নয়ন ও রাব্বিসহ কয়েকজন। স্থায়নীয়রা আকাশ কে উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসারা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে জাহাঙ্গীর হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমার ছেলের মোবাইল ছিনতাই করার প্রতিবাদ করায় আমার শ্যালক মামুনকে ও ওর দুই বন্ধুকে কুপিয়ে আহত করেছে৷ ওদের অবস্থ্যা আশংকা জনক।

নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার শহিদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সাভার মডেল থানার ওসি অপারেশন নয়ন কারকুন বলেন, আকাশ হত্যার সাথে জড়িত নয়ন ও রাব্বিকে আটক করা হয়েছে। এবং নিহতের পিতা বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের এর প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান পুলিশ।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ