আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুন, ২০২২ ইং

শ্রীপুরে নিখোঁজের আটদিন পর নদীতে ভেসে উঠলো শিশুর লাশ

 

মনিরুল ইসলাম মেরাজ :

নিখোঁজ হওয়ার ৮ দিন পর মাঝ নদীতে ভেসে উঠলো পাঁচ বছরের শিশু আরফাত আকন্দের মরদেহ ।

গাজীপুরের শ্রীপুরে ১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থলের প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে (বরমী থেকে গোসিংগা) মাঝ নদী থেকে ভাসমান অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয়রা। এর আগে, মঙ্গলবার (২৫ আগষ্ট) দুপুরের দিকে বন্ধুর সাথে খেলতে গিয়ে ওই শিশু নিখোঁজ হয়।

নিহত মোঃ আরাফাত আকন্দ (৫) উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরামা গ্রামের জুয়েল আকন্দের ছেলে।

নিহতের জেঠা সফির উদ্দিন আকন্দ জানান, গত মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে জামিলা খাতুন (৫) বছর নামে এক শিশুর সাথে খেলতে যায় আরাফাত। খেলার এক পর্যায়ে বাড়ির পাশে শীতলক্ষ্যার বানার অংশে পড়ে যায় সে। পরে জামিলা দৌড়ে এসে তার পরিবারের কাছে জানালে স্থানীয়দের সহায়তায় নদীতে সন্ধান চালানো হয়। অনেক খুঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়া হয়। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ২ দিন ও স্থানীয়রা আরও ৩দিন চেষ্টা করেও তাকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়নি। আজ মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) মাটি বহনকারী ট্রলারের মাঝি একটি মরদেহ দেখতে পেয়ে তা তীরে নিয়ে আসে। খবর পেয়ে নিহতের স্বজনরা এসে গলায় চেইন ও পড়নের জামাকাপড় দেখে আরাফাতের মরদেহ হিসেবে সনাক্ত করতে সক্ষম হয়।

মাওনা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার রাম প্রশাদ পাল জানান, খবর পেয়ে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ইউনিটের ৫ সদস্যের একটি দল মঙ্গলবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শিশুটির খোঁজে নদীতে উদ্ধার কাজ পরিচালনা করে। পরে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাত আটটা পর্যন্ত দ্বিতীয় দিনের উদ্ধার অভিযানেও সন্ধান মেলেনি শিশুটির। ডুবুরি দলের নেতা মানিক মিয়া জানিয়েছিলেন, নদীতে স্রোত থাকায় উদ্ধার কাজে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। ঘটনাস্থলের ২ কিলোমিটার পর্যন্ত খোঁজ করা হয়েছে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খোন্দকার ইমাম হোসেন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে । নিহতের স্বজনদের কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ বিনা ময়নাতদন্তে পরিবারের কাছে হস্থান্তর করা হয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ