আজ ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯শে জুন, ২০২২ ইং

ভূরুঙ্গামারীতে দুধকুমর নদের ভয়াবহ ভাঙ্গনে বিলীন হওয়ার পথে বঙ্গবন্ধু স্কুলসহ বিস্তীর্ণ অঞ্চল

 

আরিফুল ইসলাম জয়
কুড়িগ্রাম ভূরুঙ্গামারী প্রতিনিধি:

চলতি বছরের তৃতীয় বন্যায় ভয়াবহ ভাঙ্গনের হুমকিতে পড়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর বীরমুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের বিশিষ্ট সংগঠক মরহুম শামসুল হক চৌধুরী কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত বঙ্গবন্ধুর নামে দেশের প্রথম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়, গনাইরকুটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, চৌধুরী বাজার এবং ৪/৫ টি গ্রাম।

ইতোমধ্যেই বিলীন হয়ে গেছে কয়েকটি ইউনিয়নের চলাচলের জন্য ব্যবহৃত কাঁচা সড়ক। স্রোতের তোড়ে ভাঙ্গছে দু’টি ব্রীজ। প্রায় বিলীন হবার পথে সদ্য নির্মিত ১ কিঃমিঃ পাকা সড়ক। যে সড়ক দিয়ে চলাচল করে দুধকুমর নদের পূর্ব পাড়ের ৬/৭টি ইউনিয়নের জনগন।
গতকাল বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্ব) উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুন্নবী চৌধুরী ভাঙ্গন পরিদর্শনে এলে নদী ভাঙ্গন কবলিত জনগন তাঁর নিকট এর দ্রুত প্রতিকার চান। তাঁরা জানান, দ্রুত ব্যবস্থা না নেয়া হলে মৎস্য সম্পদে ভরপুর ঐতিহ্যবাহী সোনাহাট ছড়া আর দুধকুমর নদ একাকার হয়ে যাবে। তখন বিলীন হবার হুমকিতে পড়বে সোনাহাট স্থলবন্দর, বাস্তবায়নাধীন জাতীয় মহা সড়ক এবং বাস্তবায়নাধীন স্বপ্নের সোনাহাট সেতু।

সোনাহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মায়নুল ইসলাম লিটন জানান, বাস্তবায়নাধীন সোনাহাট সেতুর ৫০০ মিটার পূর্ব পাড় রক্ষা বাঁধের সঙ্গে দ্রুত আর মাত্র ১০০০ মিটার দৈর্ঘ্যের ব্লক বাঁধ নির্মান হলেই রক্ষা পাবে বিস্তির্ন জনপদ, বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয় সহ সড়ক যোগাযোগ। তিনি জানান, দ্রুত আপদকালীন অবস্থা থেকে রক্ষা পেতে আপাতত: দুধকুমর নদের পূর্ব পাড়ে নির্মিত কাঁচা বাঁধের ভেঙ্গে যাওয়া প্রায় ৩০০ গজ স্থানে মাত্র ১০ হাজার জিও ব্যাগ হলেই ভয়াবহ ভাঙ্গন রোধ করা সম্ভব। পরে ব্লক দিতে হবে।

কুড়িগ্রাম-১ আসনের সংসদ সদস্য আসলাম হোসেন সওদাগর নদী ভাঙ্গন রোধে কোন ব্যবস্থা নিয়েছেন কিনা, জানতে চাইলে নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকাবাসী জানান, সংসদ নির্বাচনের সময় তিনি বাঁধ নির্মানের আশ্বাস দিলেও নির্বাচনে জয়ের পর বাঁধ নির্মান নিয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেননি।
উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুন্নবী চৌধুরী জানান, “আমার সীমিত সামর্থের মধ্যে প্রাণপন চেষ্টা করছি চলমান নদী ভাঙ্গন রোধ করার। ইতিমধ্যেই পানি উন্নয়ন বোর্ডে তাগিদ দিয়েছি। তাঁরা আশ্বাস দিয়েছেন দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার”।

সোনাহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক জানান, দুধকুমর নদ দ্রুত খনন করা দরকার। এলাকাবাসীর স্বপ্ন, এক সময়ের আন্তর্জাতিক মানের বিলীয়মান সোনাহাট নদী বন্দরটি এই এলাকায় পূনঃ স্থাপিত হতে হলে প্রথমেই দ্রুত পাড় রক্ষার জন্য ব্লক বাঁধ নির্মান জরুরী প্রয়োজন।
নদী ভাঙ্গন পরিদর্শন কালে উপজেলা চেয়ারম্যন নুরুন্নবী চৌধুরী’র সঙ্গে ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ ও স্থানীয় আওয়ামীলীগ নের্তৃবৃন্দ, সোনাহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাজাহান আলী মোল্লা, শিক্ষকবৃন্দ এবং নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকার জনগন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ