আজ ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

তাহলে কি আইন পড়ে ভুল করছি আমরা

 

সুমাইয়া ইয়াসমিন
আইন বিভাগ
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি :

“আইন”একটি কর্মমুখী শিক্ষা এবং আইনজীবী একটি স্বাধীন পেশা।
যেখানে বেকার থাকার কোন সুযোগ নেই।একজন ব্যাক্তি পাস করার সাথে সাথে আইনজীবী হিসাবে সনদ পাওয়ার অধিকার রাখে।

অথচ শিক্ষানবিশ আইনজীবীদেরকে বার কাউন্সিল বেকারত্বের কারাগারে বন্দী করে রেখেছে।

প্রায় দীর্ঘ ৩ বছর পর এম সি কিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত এবং বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে লিখিত পরীক্ষা সম্পূর্ণভাবে অনশ্চিত হয়ে পড়ায় বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ২০১৭ এবং ২০২০ সালের আইনজীবী তালিকাভুক্ত পরীক্ষায় এম সি কিউ উত্তীর্ণদের আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্তির দাবীতে গত ৭ জুলাই ২০২০ ই থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টে অনশন করেণ শিক্ষানবিশ আইনজীবীগণ।

সুপ্রিম কোর্টের কার্যনির্বাহী কমিটির সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলের আশ্বাসে অনশন ছেড়ে আসতে হয় শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের।

এরপর, ১৫ জুলাই থেকে অধ্যাবধি বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের অস্থায়ী কার্যালয় বোরাক টাওয়ারে্র সামনে সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শিক্ষানবিশ আইনজীবীগণ।অথচ আজকে ১৭ দিন হয়ে গেলেও বার কাউন্সিল থেকে কোন সাড়া পায়নি শিক্ষানবিশ আইনজীবীগণ।

এই অপরাধ এই শিক্ষানবিশ আইনজীবীদের? দেশের সর্বোচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে শুধুমাত্র পরীক্ষার জটের কারণে বছরের পর বছর তারা কেনো বেকার থাকবে?

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ