আজ ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

সাভারে কবজি বিহীন জান্নাতুল এসএসসিতে ৪.৭২ অর্জন, কলেজে ভর্তির সহযোগিতা চায়

 

ইমাম হোসেন :

ঢাকা জেলাধীন সাভারের আশুলিয়া গাজীরচট হাজী মতিউর রহমান বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী প্রতিবন্ধী জান্নাতুল ফেরদৌস। কবজি বিহীন হাত দিয়ে লিখেও এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৪.৭২ পেয়ে উর্ত্তীন হয়েছে। ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষায় কবজি বিহীন হাত নিয়ে অংশগ্রহনের মাধ্যমে সাফল্য অর্জন করে জান্নাতুল।

কুমিল্লা জেলার চাটখিল উপজেলাধীন মানিকপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের প্রতিবন্ধী মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস। বর্তমানে মায়ের সাথে সাভারের আশুলিয়া পল্লীবিদুৎ এলাকায় সাবেক হবি মেম্বারের বাড়ির  পাশে ভাড়া বাসায় বসবাস করছে।

গৃহিনী মা ও কৃষক বাবার একমাত্র সন্তান জান্নাতুল। জান্নাত ছোট বেলায় সাভারের নবীনগরে এক ভাড়াটিয়া বাসায় বসবাস রত অবস্থায় বাড়ীর ছাদে থাকা ইলেকট্রিক তারে জরিয়ে দুই হাতের কবজি হারিয়েছে। হাতের কবজি হারিয়ে সে তার অদম্য প্রচেষ্টায় এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে পরীক্ষা দিয়েছে।

ছোট বেলা থেকে ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন বুকে নিয়ে অনেক কষ্ট করে লেখাপড়া করার মাধ্যমে এগিয়ে চলছে জান্নাতুল। গর্ভধারিনী রত্নগর্ভা মায়ের অনুপ্রেরনায় লেখাপড়া চালিয়ে আজ শিক্ষা জীবনের একটি ধাপে এগিয়েছে জান্নাতুলের শিক্ষা জীবন আর সেই সাথে ভবিষ্যতেও লেখাপড়া চালিয়ে যেতে চাচ্ছে জান্নাতুল। এসএসসি পরীক্ষার পূর্বে জান্নাতুল পত্রিকায় প্রচারের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার জন্য সহযোগীতার প্রার্থনা করছিলো। তাকে নিয়ে তার মায়ের অনেক আশা তাই গৃহীনি মা অনেক কষ্ট করে টাকা জোগার করার মাধ্যমে এসএসসি ফরম পূরুন করেছিলো।

একই সাথে মেয়ের পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার খরচ খুবই কষ্ট সাধ্য হওয়ায় জান্নাতুল এর মা দেশবাসীর কাছে সহযোগীতা কামনা করেছিলেন। জান্নাতুল জানায় তিনি সাভার ক্যান্টনমেন্ট কলেজে ভর্তি হতে ইচ্ছুক। কিন্ত তার পরিবারের পক্ষে খরচ বহন করা সম্ভব নয় তাই সকলের সহযোগীতা চায় জান্নাতুল।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ