আজ ২৬শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

শাহরাস্তিতে আলোচিত ঘটনায় ব্লেড নয় বটিতে আত্মহননের চেষ্টা গৃহবধূর

 

 

ইব্রাহীম খলীল সবুজ – চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ

চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তিতে আলোচিত গৃহবধূ শাহিন আক্তার (২৫) ব্লেড দিয়ে নয়, বটি দিয়ে নিজেই আত্মহননের চেষ্টা চালায়।
বৃহস্পতিবার পুলিশ তদন্তে উন্মোচিত বিষয়টি নিশ্চিত করে।
বুধবার ওই গৃহবধূ চিকিৎসা শেষে বাপের বাড়িতে ফিরে এলে ১২ ঘন্টার মধ্যেই পুলিশি তদন্তে (ব্লেড নয়,বটিদা দিয়ে গলা কাটার কথা) এ কান্ডের রহস্য উন্মোচ করে।
পুলিশি জেরার মুখে গৃহবধু নিজের অপকর্মের কথা স্বীকার করেন। তার দেয়া তথ্যমতে গলাকাটায় ব্যবহৃত বটিদা উদ্ধার করেছে পুলিশ।
ঘটনার বিবরণ প্রকাশে বলা হয় বুধবার সকালে উপজেলার রায়শ্রী দক্ষিণ ইউপি’র বেপারী বাড়ির ব্রিকফিল্ড শ্রমিক রাহাত হোসেন (৩০) স্ত্রী শাহীন আক্তার সকালে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। তার শশুর ইউনুস মিয়া (৫০) রিক্সা নিয়ে ও স্বামী রাহাত জীবিকার প্রয়োজনে ঘর থেকে বেরিয়ে পড়ে। ওই সময় শাশুড়ি ছকিনা বেগম বাড়ির আঙ্গিনায় ধানের কাজ করছিলেন। কিছুক্ষণ পর শাশুড়ি ছকিনা ঘরে এসে তার পুত্রবধূ শাহীনকে অচেতন অবস্থায় রক্তমাখা গলায় চেঁচামেচি করতে দেখে। ওই দৃশ্য দেখে শাশুড়ি ছকিনা বেগমের চিৎকার করলে বাড়ির স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে গৃহবধূর অবস্থা মুঠোফোনে ভিডিসহ ক্যামেরাবন্দি করে।
ঐ সময় গৃহবধূকে বলতে শোনা যায়, দুজন লোক লম্বা সাইজের তার ঘরে ঢুকে তার শ্রীলতাহানি চেষ্টা চালায়। এ কাজে সে অসম্মতি জানালে অজ্ঞাত ওই দুই ব্যক্তি সঙ্গে থাকা ব্লেড দিয়ে তার গলা কেটে এবং তাকে ব্লেডের ভাঙ্গা অংশ খাইয়ে দেয়। অবশ্য পরে গৃহবধূর শাশুড়ি ছকিনা ঘরে ঢুকে কোন ব্যক্তি দেখতে পাননি বলে জানান। পরে স্থানীয়রা গলাকাটা অবস্থায় তাকে শাহরাস্তি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাঃ আয়শা সিদ্দীকা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়।
এবিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তা (টিএইচএ) ডাঃ প্রতিক সেন জানান, আহত রোগীর এক্সরে ও প্রয়োজনীয় পরীক্ষা করিয়ে তার পেটে বা গলায় ধারালো কোন বস্তুর চিহ্ন রয়েছে কিনা তা নিশ্চিতে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে প্রেরণ করা হয় ।
ঐদিন এ ঘটনায় হাজীগঞ্জ ও কচুয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফজাল হোসেন ও শাহরাস্তি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ্ আলমের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ একদল গণমাধ্যমকর্মী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
পুলিশ ক্রাইম স্পট পরিদর্শনে গিয়ে আহত গৃহবধুর বক্তব্যের মিল না পেয়ে বাড়ির লোকজনকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে।
এক পর্যায়ে গৃহবধূর শ্বশুর ইউনুছ মিয়া ও শাশুড়ি ছকিনা বেগম পারিবারিক কলহের কথা কবুল করে , ঐ পুত্রবধু কিছুদিন ধরে নিজে থেকে অজ্ঞাত কারনে ক্ষমা প্রার্থনা করে আসছিল বলে জানান। পরে ওইদিন বিকেলে পুলিশের উপ-পরিদর্শক আব্দুল আউয়াল কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক থেকে গৃহবধু আশংকামুক্ত রয়েছে বলে নিশ্চিত হন। ঐ দিন হাসপতাল ছাড়পত্র নিয়ে সে পিত্রালয় শাহরাস্তি পৌরসভার ছিখুটিয়া মহল্লায় এসে উঠে। পুলিশ সেখানে ঘটনার পুনঃ বিবরণ জানতে চাইলে গৃহবধু অসংলগ্ন কথা বলতে থাকে।
এক পর্যায়ে সে আত্মহত্যার উদ্দেশ্যে এ কাজ করেছে বলে নিশ্চিত হয়।
এ ব্যাপারে সে অনুতপ্ত ও ক্ষমা প্রার্থী বলেও জানায়।
শাহরাস্তি থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহ্ আলম জানান, আত্মহত্যার উদ্দেশ্যে ভিকটিম নিজেই তার গলায় বটি চালিয়েছে। প্রাথমিক ভাবেই বিষয়টি আত্মহত্যা চেষ্টা সন্দেহ হওয়ায় আমরা বিষয়টি চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মোঃ মাহবুবুর রহমান পিপিএমকে অবহিত করি। তাঁর নির্দেশনা মোতাবেক পুলিশ ঘটনার রহস্য উন্মোচনে করতে সক্ষম হয়। হাজীগঞ্জ ও কচুয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফজাল হোসেন জানান, মানসিক ভাবে হতাশা ও স্বামী পরিবারকে চাপে ফেলতে গৃহবধু এ কান্ড ঘটিয়েছে।
প্রসঙ্গত, ঐ গ্রামের ইউনুস মিয়ার বড় ছেলে রাহাতের সাথে ৫ বছর পূর্বে শাহরাস্তি পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের ছিখুটিয়া গ্রামের আবুল কালামের মেয়ে শাহীনের বিবাহ হয়।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ