আজ ২৬শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

নিউইয়র্ক প্রবাসী ডা. ফেরদৌস খন্দকার পারলে আপনারা কেন পারবেন না

হায়দার আলী

 

নিউ ইয়র্কের ঘরে ঘরে করোনা আক্রান্ত রোগী। প্রতিদিনই সেখানে মরছে মানুষ, দিন যায় লাশের সারি দীর্ঘ হয়। করোনা আতংকে ঘরবন্দী মানুষ। কিন্তু জীবনের মায়া ত্যাগ করেই সংক্রামিত রোগীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে চিকিৎসা দিচ্ছেন একজন মানুষ, একজন চিকিৎসক, একজন বাংলাদেশি ডা. ফেরদৗস খন্দকার। বিশেষ করে অসুস্থ্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের কারো ফোন পেলেই ছুটছেন গাড়ি নিয়ে, সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসা সরঞ্জাম এবং খাদ্য সামগ্রীও। হাজার হাজার মাইর দূরের আমেরিকার সিটিতে করোনা রোগীদের দিন-রাত চিকিৎসাসহ সেবা দিয়ে আসলেও একটি দিনের জন্য ভুলে যাননি বাংলাদেশের মানুষের কথা।
দেশের মহাদুর্যোগের সময়ে সুযোগ পেলেই ফেসবুক-ইউটিউবসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইভে এসে করোনা বিষয়ে নানা ধরনের গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শও দিয়ে যাচ্ছেন প্রতিদিন। ডা. ফেরদৌস খন্দকারের বেশ কয়েকটি লাইভে দেখেছি করোনা বিষয়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ খুবই সুন্দর করে গুছিয়ে তুলে ধরছেন। করোনা বিষয়ে নানা দিক খুটিয়ে খুটিয়ে সাবলিল ভাষায় গুছিয়ে এমনভাবে তুলে ধরছেন যা দেখে অল্পতেই মানুষ বুঝে নিচ্ছেন এবং কাজে লাগাতে পারছেন। ডা. ফেরদৌস খন্দকার দীর্ঘ ২৫ বছর নিউইয়র্কে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন। তিনি কুইন্স এলাকার এলমহার্স্ট হাসপাতালের একজন চিকিৎসক এবং পাশাপাশি তার আউটপেশেন্ট মেডিক্যাল সেন্টার রয়েছে।
ডা. ফেরদৌসকে নিয়ে কথাগুলো বলছি এজন্য যে, তিনি আমেরিকার নিউইয়র্কের মৃত্যুপুরীতে বসবাস করেও এক মুহুর্তের জন্য ভুলেনি রোগীর সেবা দিতে, কাজটি খুবই ঝুকিঁপূর্ন জেনেও হাসপাতাল নয়-খোদ বাড়ি বাড়ি গিয়ে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। আর একটু সুযোগ পেলেই করোনা বিষয়ে বাংলাদেশের মানুষের জন্য লাইভে এসে নানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরছেন। বাংলাদেশের মানুষ এবং দেশকে নিয়ে তাঁর চোখে মুখে উদ্বেগ আর উৎকন্ঠা দেখে বুঝা যায় তাঁর দেশাত্ববোধ কতটা জাগ্রত। আমাদের দেশের চিকিৎসকরাও জীবনের ঝুঁিক নিয়ে করোনা আক্রান্তদের পাশে থেকে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন আবার কেউ কেউ দেশের ক্রান্তিকালে অর্পিত দায়িত্ব পালন করছেন না। উপযুক্ত নিরাপত্তার অভাবের কথা বলে নিজেদের আড়াল করে রাখছেন। মৃত্যুপুরী নিউ ইয়র্কে ডা. ফেরদৌস খন্দকাররা পারলে আপনারা কেন পারবেন না? আর বাংলাদেশে বীরযোদ্ধা ডাক্তার ভাই-বোনরা যারা চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন তাদেও লাল সালাম। আর যারা নিজেকে আড়াল করে রাখছেন, নিরাপত্তা প্রস্তুতির কথা বলবেন, নানা সমস্যার কথা তুলে ধরবেন, কষ্ট করে প্লিজ ডা. ফেরদৌস খন্দকারের ফেসবুক টাইমলাইনে একটু উঁিক মেরে আসবেন। তিনি কিভাবে করোনা রোগীদের সামনে থেকে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন। চিকিৎসক-ভাই-বোনদের বিনীত অনুরোধ- জাতীর এই কঠিন সময়ে আপনাদের খুবই দরকার- মাথা উচুঁ কওে আপনাদের লড়াই দেশকে রক্ষা করবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ