আজ ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৪শে মে, ২০২৪ ইং

বঙ্গবন্ধুর ঘোষিত এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম এখনও চলমান

মো:খোরশেদ আলম :

অসাম্প্রদায়ীক বৈষম্যহীন অর্থনীতি ও সমাজের জন্য জাতির পিতার ডাকে চিনিয়ে আনে বাংলার মুক্তিকামী জনতা স্বাধীনতার লাল সূর্য।সামরাজ্যবাদী আগ্রাসন আর পাকিস্তানি স্বৈরশাসন ভেঙ্গে বঙ্গবন্ধু চেয়ে ছিলেন বাংলার বঞ্চিত মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি।সে পথ ধরে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধ আসলেও এখন রয়েগেছে বৈষম্য।একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে সামনে এগিয়ে নিতে এবং অর্থনৈতিক সমৃদ্ধ অর্জনে বঙ্গবন্ধু রেখেছিলেন সাহসিক ভূমিকা । তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ আজ অর্থনৈতিক উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বব্যাপী পরিচিতি পাচ্ছে।দেশের আজ যে উন্নয়ন, জাতির জনকের হাত ধরে তার গোড়াপত্তন হয়েছে।স্বাধীনতার পরবর্তী বাংলাদেশ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে মাত্র ৩.৫ বছর পেয়ে ছিল।এই কম সময়ের শাসন আমলে প্রায় শূণ্য অর্থনৈতিক দেশকে আত্মমর্যাদা পূর্ণ জাতি হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছেন বঙ্গবন্ধু। এখন উন্নয়নের রোল মডেল বাংলাদেশের চিত্র ৫০ বছর আগে এমন ছিল না। বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন শুধু স্বাধীনতা অর্জন নয় ,তার পাশাপাশি এদেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি।কেননা ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ভাষণে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন “ এবারের সংগ্রাম আমদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম ।”জাতির পিতা স্বাধীনতার সংগ্রাম বলার পূর্বে বলেছিলেন এবারের সংগ্রাম আমদের মুক্তির সংগ্রাম। আমাদের মুক্তির সংগ্রাম কথাটিতে অর্থনৈতিক মুক্তির কথাটি বিদ্যমান ছিল। জাতির পিতার সেই মুক্তির সংগ্রাম যা অর্থনৈতিক মুক্তির কথা ভেবেই জাতি সে সংগ্রাম এখনও চালিয়ে যাচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে।সেই মুক্তি সংগ্রামের পথ ধরে জাতির পিতার রেখে যাওয়া বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে উন্নয়নের রোল মডেল।

লেখক/মো: খোরশেদ আলম , পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিস, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়,রংপুর ও সাবেক অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র , জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, সাভার, ঢাকা।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ