আজ ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

সিংগাইর থেকে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত লাশটির পরিচয় মিলেছে

 

আমিনুর রহমান, সিংগাইর(মানিকগঞ্জ):

মানিকগঞ্জের সিংগাইর থেকে উদ্ধারকৃত লাশটি ঢাকার তেজগাঁও থানার নাখালপাড়া এলাকার বাসিন্দা সুলতান হোসেন সন্টুর (৪৫)। সে রাজবাড়ি সদর উপজেলার ভবদিয়া গ্রামের মৃত শুকুর আলীর ছেলে। তিনি উত্তরায় একটি ভাইং হাউজের ব্যবস্থাপক পদে চাকুরি করতেন। বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই)) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে হেমায়তপুর-মানিকগঞ্জ সড়কের ঘোনাপাড়া বাসস্ট্যা- এলাকা থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তার স্ত্রী ও একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সুলতান হোসেন সন্টু গত মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) সকালে ঢাকার নাখালপাড়া বাসা থেকে বেড় হয়ে নিখোজ হন। এরপর থেকে কোথাও তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিলনা। এ ঘটনায় ওইদিন রাতেই তেজগাঁও থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে হেমায়তপুর-মানিকগঞ্জ সড়কের ঘোনাপাড়া বাসস্ট্যা- এলাকায় রাস্তার পাশে জিন্সের প্যান্ট ও লাল কালো রঙের ফুলশার্ট পরিহিত একটি মৃতদেহ পরে থাকতে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। খবর পেয়ে জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে গিয়ে লাশটি ঢাকার তেজগাঁও থানার নাখালপাড়া থেকে নিখোজ সুলতান হোসেন সন্টুর বলে নিশ্চিত করে স্বজনরা।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আবুল কালাম জানান, অন্য কোথাও সুলতান হোসেন সন্টুকে হত্যা করে তার লাশ সিংগাইরে ফেলে রেখে গেছে দুর্বৃত্তরা। নিহতের মুখমণ্ডলে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কি কারণে, কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এঘটনায় নিহতের পরিবার ঢাকার তেজগাঁও থানায় মামলা করতে ইচ্ছুক। সেখানে মামলা না নিলে সিংগাইর থানায় মামলা নথিভুক্ত করে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ঘাটন ও খুনীদের বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ