আজ ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

চাঁদপুরে নিত্যপূণ্যের দাম আকাশচুম্বী হওয়ায় ক্রেতাদের ক্ষোভ

 

 

ইব্রাহীম খলীল সবুজ – চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ

 

বর্তমান করোনা ঝুঁকিতে দেশের সব জেলাসহ চাঁদপুরের সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।
তাই জেলায় জেলায় চলছে লকডাউন।
তাই অধিকাংশ মানুষ কর্মহীন রয়েছে।

জীবনযাত্রার চলমান অচলাবস্থার মধ্যে সবচেয়ে বেশি হতাশ নিম্ন ও মধ্যআয়ের মানুষগুলো।
আয়ের সঙ্গে ব্যয়ের সামঞ্জস্য নেই। যা আয় করেন তার বেশিরভাগই চলে যায় নিত্যপণ্যের বাজারে।
এদিকে রমজান আসতেই বাড়ছে অধিকাংশ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। সামনের দিনগুলোতে আরো অস্থিরতা বাড়ার আশঙ্কা করছেন সাধারণ ক্রেতারা।

বর্তমানে বাজারে চাল, ডাল, তেল, রসুন, আদা, অন্যান্য মসলা, খেজুর, ছোলাসহ অধিকাংশ পণ্যের দাম অস্বাভাবিক বেড়েছে।
এরমধ্যে চিনি, আটা, ময়দা, পেঁয়াজসহ বেশি বেড়েছে মোটা, চিকন সব ধরনের চাল।
আদা-রসুন, মরিচ, মসুরি, খেসারি, মুগ, অ্যাংকর ডাল এবং ভোজ্য তেলের দামও চড়া। তবে চিনি, আটা, ময়দা, লবণ কিছুটা স্থিতিশীল রয়েছে। তারপরও কেজিতে বেড়েছে ৫-১০ টাকা।
আলুর কেজি ২২ টাকা থেকে ২৫ টাকা।
নিত্যপণ্যের লাগামহীন দামে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।
সাধারণ মানুষ চিৎকার করে বলেন, ব্যবসায়ীদের গুদাম ভর্তি মালামাল থাকা সত্ত্বেও চাল, ডাল, তেল, আদা, রসুন, মরিচসহ বাজারে সবকিছুর দামই বেশি।
কেনার সামর্থ্য দূরে থাক, আমরা সাধারণ মানুষ না খেয়ে মরার অবস্থা আমাদের।

বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দামে এমন ঊর্ধ্বগতির ফলে ব্যয়ভার বেড়ে যাওয়ায় চাপে পড়েছেন সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ।
অন্যদিকে ব্যবসায়ীরা বলছেন, করোনাভাইরাসের কারণে আগের মতো পণ্য সরবরাহ হচ্ছে না। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে মানুষকে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে। ফলে চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কমে যাওয়ার কারণে অধিকাংশ পণ্যের দাম বেড়েছে।
বিশেষ করে রমজানকে কেন্দ্র করে জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে।

তথ্য সূত্রেজানা যায়, চাঁদপুর জেলায় তেল, চিনি, আটা, ময়দাসহ ৫টি নিত্য-পণ্যের ১৮৫ জন ফার্স্ট পার্টি ব্যবসায়ী রয়েছেন।
পাইকারী চাল ব্যবসায়ী আছেন ২২০ জন, মসলার পাইকারী ব্যবসায়ী ৯৫ জন, পেঁয়াজ, আদা রসুনের ১৫৫ জন, মুড়ি চিড়ার বড় পাইকার ৮০ জন, আলু ব্যবসায়ী ১৩৫ জন।
মূলত তাদের আমদানি করা নিত্যপণ্য বাজারের চাহিদা মিটাচ্ছে।
দেশের করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের পণ্য কেনার হিড়িক পড়ে যাওয়ায় এই পাইকারী ব্যবসায়ীদের অবস্থা খুবই রমরমা।
তারা প্রত্যেকটা পণ্যের ভাল দাম পাচ্ছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ