আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জুন, ২০২১ ইং

ওমানি শিক্ষককে রাতের আধারে ঘরে ঢুকে হত্যা করলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইব্রাহিম

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ওমানের মাছিরাহতে এক ওমানি নাগরিককে রাতের আধারে ঘরে ঢুকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে বাংলাদেশী যুবক। একই ঘটনায় স্বামীকে খুনের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুত্বর অাহত হয়ে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে নিহত ওমানির স্ত্রীও। বিশ্বস্ত সূত্র থেকে জানা যায় ওই ওমানির নিজঘরে ডুকে রাত তিনটার দিকে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটান।

নির্মম ও অনাকাঙ্খিত এই হত্যাকাণ্ডের প্রেক্ষিতে খুনি ইব্রাহীমকে (২৬) হত্যাকাণ্ডের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে ওমান পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে জানতে চাইলে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে ওমানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম সারওয়ার বলেন- একজন বাংলাদেশী গ্রেফতার হয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। বাকি বিষয় তদন্তের পর জানা যাবে।”

উল্লেখ্য নিহত ওমানি নাগরিক একজন শিক্ষক। একই সাথে তিনি ওই এলাকার ধনাঢ্য ব্যক্তি ছিলেন। কেনো তাকে এমন নির্মমভাবে খুন করলো তার বিস্তারিত ওমান রয়েল পুলিশ কিংবা ওমানের কোন গণমাধ্যম জানায়নি।

তবে বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করেছে গতকাল ওমানির ঘরে প্রবেশ করে ইব্রাহিম কাজের মেয়ের সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনকালে‌ বিষয়টি ওমানির নজরে আসে। ওমানি এর প্রতিবাদ করলে দুইজন মিলে ছুরি দিয়ে ওমানি এবং তার স্ত্রীকে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই ওমানির মৃত্যু হয় এবং আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওমানির স্ত্রীকে মাসিরাহ হসপিটালে ভর্তি করা হয়। অনৈতিক কর্মকান্ড এবং এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত মেয়েটির বাড়ী গাইবান্ধা বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেলেও তার নাম জানা যায়নি।

ইব্রাহিম গত ২বছর যাবত ওমানের মাসিরাহ অঞ্চলে ওমানিদের বাসায় রান্নাবান্নার (তাব্বাকি) কাজ করতো এবং মেয়েটি গত ৩বছর যাবত ওই ওমানির বাসায় গৃহকর্মী (খাদ্দামা) হিসেবে কাজ করতো বলে সূত্র নিশ্চিত করে।

স্থানীয় প্রবাসীদের অনেকেই ধারণা করছেন প্রাথমিকভাবে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রতিবাদের কারণে হত্যাকাণ্ড ঘটানো হলেও এর পিছনে অন্য কোনো কারণও থাকতে পারে। হত্যাকারীকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বেরিয়ে আসবে বলে মন্তব্য করেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মাসিরার একজন প্রবাসী।

হত্যাকাণ্ডে জড়িত ইব্রাহিমের বাড়ী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা থানার কাইমপুর নামক এলাকায়।
ঘটনাটির পর বাংলাদেশীদের উপর চরম বিপর্যয় নেমে আসবে বলে ধারণা করছেন ওমান প্রবাসী কমিউনিটি নেতারা। একজন বাংলাদেশীর অপকর্মের কারণে খেসারত দিতে হবে ওমানে বসবাসরত অাট লক্ষ প্রবাসীদেরও বলে মন্তব্য তাদের।

বাংলাদেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করতে যথেষ্ট পরিমাণে রেমিটেন্স ওমান থেকেও দেশে যাচ্ছে মন্তব্য করে ওমানে বসবাসরত একজন কমিউনিটি লিডার বলেন রাতের আধারে ওমানির ঘরে ঢুকে ছুরিকাঘাত করে হত্যার মাধ্যমে সূচনা হয়েছে ওমানে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের কলঙ্কিত অধ্যায়ের। এর ঘটনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশীদের সম্পর্কে যে ভুল বার্তা ওমানি দের কাছে পৌঁছাল এটি কখনো শোধরাবার নয়। নির্মম এই হত্যাকান্ড ওমানে বাংলাদেশীদের শ্রমবাজারের পিঠে বেত্রাঘাত করেছে বলেও মন্তব্য করেন।

এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে চট্টগ্রাম সমিতি ওমানের সভাপতি ও এনআরবি সিআইপি এসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক সিআইপি ইয়াছিন চৌধুরী বলেন হত্যাকাণ্ডটি নিঃসন্দেহে জঘন্য এবং দূরভিসন্ধিমূলক ঘটনা । তিনি এ ঘটনার তিব্র নিন্দা জানায় এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে সে বিষয়ে বাংলাদেশীদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ