আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

ধামরাইয়ে ৩৩ টি মন্দির ও  স্কুলের শিক্ষকদের মাঝে সরকারি ত্রাণ

 

রনজিত কুমার পাল (বাবু)
নিজস্ব প্রতিবেদক

নোভেন করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকারি নির্দেশ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরে থাকার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া ও নিম্নআয়ের মানুষের সরকারি খাদ্য সহায়তার আওতায় ধামরাইয়ের এমপি আলহাজ্ব বেনজীর আহমদ ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সামিউল হক এর সহযোগিতায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাষ্টের মাধ্যমে পরিচালিত মন্দির শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম এর আওতায় পরিচালিত ধামরাই উপজেলার মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম এর শিক্ষা কেন্দ্রের স্কুলের শিক্ষকদের মাঝে সরকারি ত্রাণ বিতরন করা হয়।

বুধবার (৮ই এপ্রিল) সকাল এগারটায় ঐতিহ্যবাহী ধামরাই শ্রীশ্রী যশোমাধব মন্দির এর নাট-মন্দিরে ত্রাণ বিতরন উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত সচেতনতামূলক আলোচনা পর্বে বক্তব্য রাখেন শ্রীশ্রী যশোমাধব মন্দির পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অজিত চক্রবর্তী ও উক্ত মন্দির কমিটির যুগ্ন সাধারন সম্পাদক নন্দ গোপাল সেন,
এ’সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মাধব মন্দির পরিচালনান কমিটির প্রচার সম্পাদক সাংবাদিক দীপক চন্দ্র পাল,রোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নেপাল সাহা(মেম্বার)প্রমূখ।

বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন – আপনারা সবাই জানেন সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে পনের লক্ষ লোক, আর প্রায় এক লক্ষ লোকের প্রাণহানি ঘটেছে। এমুহূর্তে এ রোগের জন্য কোন ঔষধ নেই। একমাত্র সচেতনতার মাধ্যমে করোনা থেকে মুক্ত হওয়া সম্ভব। আপনারা নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়ার অভ্যাস ও মাস্ক ব্যবহার করুন। স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন নিজে সুস্থও নিরাপদ থাকুন অপরকে নিরাপদ রাখুন।
সচেতনতামূলক বক্তব্য শেষে মন্দির ভিত্তিক শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষকদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সরকারের দেওয়া ত্রাণ সামগ্রী পেয়ে শিক্ষকরা খুবই খুশী হন। ত্রাণ পেয়ে যশোমাধব মন্দির কেন্দ্রের শিক্ষক ধেনু রানী পাল বলেন কাজ নেই এই কঠিন সময়ে সরকার প্রদত্ত ত্রাণ পেয়ে থুশি হয়েছেন বলে জানান।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ