আজ ৪ঠা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ ইং

গার্মেন্টস সেক্টর আমাদের টনক নড়িয়েছে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, গার্মেন্টস সেক্টর আমাদের টনক নড়িয়েছে। বাংলাদেশের এক্সপোর্ট কিন্তু আজ মাল্টি ডায়মেনশনাল এক্সপোর্টে উপনীত হয়েছে।

শনিবার(৩০ অক্টোবর) বিকাল ৪ টার দিকে সাভারের আশুলিয়ায় শিল্পাঞ্চল পুলিশ ১ এর কার্যালয়ে এ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে যোগ দিয়ে এ সব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছিলো এই গার্মেন্টস সেক্টর নিয়ে। ইন্ডাস্ট্রি অনেক সময় আমাদের মালিকদের শ্রমিকদের অসন্তোষ লেগেই থাকতো। সেই গুলি নিরসনে শিল্প পুলিশ গঠন করা হয়। এখন আমরা নিশ্চিন্ত থাকতে পারি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের ১০০ টিরও অধিক দেশে আমাদের ফার্মাসিটিকেল প্রডাক্ট এক্সপার্ট হয়। প্রধান মন্ত্রীর দিক নির্দেশনায় বাস্তবায়ন হচ্ছে বলেই এসব সম্ভব হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ইকোনমিক জোন মিরেরসরাই আমরা অনেক গুলো মেগা প্রজেক্ট সমুদ্রের নিচ দিয়ে টালেন নিয়ে আসছি। আমরা মেট্রো রেল নিয়ে এসেছি, আমরা কক্সবাজার বিমানবন্দকে ইন্টারন্যাশনাল বিমানবন্দরে পরিনত করছি। আমরা মাথারবাড়িতে সমুদ্র বন্দর করছি। যা সিঙ্গাপুর এবং অন্যান্য পোর্টের মত।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আমাদের শিল্প পুলিশ সুন্দর ভূমিকা পালন করেছে বলেই শ্রমিক ও মালিকদের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রয়েছে। শিল্পাঞ্চলকে সুরক্ষিত করার জন্য, শিল্প এলাকাগুলো শান্তিপূর্ণ রাখার জন্য শিল্পপুলিশ কাজ করে চলেছে। শিল্প পুলিশের পাশাপাশি সাইবার ক্রাইম ইউনিট, এন্টি টেররিজম ইউনিট সহ সব কিছু নিয়েই কাজ করছি। পুলিশকে আরো সুন্দর আরো শক্তিশালী করে সাজাচ্ছি।

এসময় বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই শিল্প পুলিশ প্রতিষ্ঠা করেন। শিল্প পুলিশ না হওয়ার জন্য অনেক এনজিও আন্তর্জাতিক ভাবে লবিং করেছে। শ্রমিকদের ত্রাণ কর্তা হিসেবে শিল্প পুলিশের আবির্ভাব হয়েছে। শিল্পের বিকাশে শিল্প সহায়ক পরিবেশ তৈরীতে সক্ষম হয়েছে শিল্প পুলিশ।

ইকোনমিক সুপার পাওয়ার হতে হলে ১৮ কোটি মানুষকে হাতে হাত রেখে কাজ করতে হবে। আমাদের শিল্পাঞ্চল কিন্তু আশুলিয়া-গাজীপুরে সীমাবদ্ধ নাই। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দুপাশে, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুপাশে শিল্প কারখানার অভাব নেই। আমাদের শিল্প পুলিশেরও এক্সপানশন প্রয়োজন।

আমাদের সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য আরো বাজেট প্রয়োজন, আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। মাত্র ১৩৬ টাকা বাজেট আমাদের শিল্প পুলিশের জন্য। হাজার হাজার কোটি টাকার শিল্প আমরা প্রটেকশন দিচ্ছি। কিন্তু আমাদের খুবই বেহাল অবস্থা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্প মন্ত্রী নূরুল মাজিদ মাহমুদ, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মোঃ এনামুর রহমান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন।

সভায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন শিল্পাঞ্চল পুলিশের অতিঃ আইজিপি মোঃ শফিকুল ইসলাম। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ এর প্রতিনিধিদল এবং বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন শিল্প কারখানার মালিকরা।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ