আজ ২৭শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই জুন, ২০২১ ইং

মিত্রবাহিনী রুপে ছাত্রসমাজ ও স্বেচ্ছাসেবক

আশুলিয়া প্রতিনিধি, মোঃ সেনাম উল তাহমিদ: 

আশুলিয়ার ছোট্ট এলাকা বটতলা । করোনা আতঙ্কে যখন এলাকার প্রায় সব মানুষই ঘরে মধ্যে রয়েছেন তখন দেখা যায় এলাকার কিছু ছেলেরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ দেয়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ করছে , নিজেরা তারা টাকা তুলছে অসহায় খেটে খাওয়া মানুষদের সাহায্যের জন্য । একাজে অংশগ্রহণ করেছে এলাকার কিছু ছাত্রদের দল। এই কার্জক্রমে তাদের সাহায্য করেছেন তাদের শিক্ষকগণ । সকলের প্রচেষ্টায় গঠিত হয়েছে “ এক টুকরো হাসি ফাউন্ডেশন “। যেখানে দেশের নেতারা তাদের রাজনৈতিক দল এর টাকা ব্যবহার করে দিচ্ছে ত্রাণ সহয়তা সেখানে এই স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া ছাত্রদের কর্মকান্ড এলাকাবাসীকে করেছে অবাক । ‘এক টুকরো হাসি ফাউন্ডেশন ‘ এর সভাপতি জনাব আরিফুল ইসলাম আমদের বলেন ,”আজ দেশে ১০.৫ %হত দরিদ্র , যদি মোট জনসংখ্যা ১৮ কোটিও হয় তবে দেশের হত দরিদ্রদের সংখ্যা হয় প্রায় ২ কোটি । আর দরিদ্র প্রায় ৪ কোটির মত । অতএব মোট প্রায় ৬ কোটির মত লোক এখন প্রায় না খেয়ে রাত্রী যাপন করছে । দেশে সরকারি ত্রাণ দ্বারা সকল মানুষকে সাহায্য করা সম্ভব নয় তাই আমাদের সকলের উচিত তাদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসা । “ এ ফাউন্ডেশনের হয়ে স্বেচ্ছায় কাজ করে সাভার ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজের বর্তমান , প্রাক্তন ও বি এন সি সি প্লাটুনের কিছু সদস্যরা । বিএনসিসি এর সদস্যরা বিএনসিসি ক্যাডেট রিয়াদ হসেইন এর নেতৃত্বে কাজে অংশ নেয় । এই কিছু ছাত্রদের এগিয়ে আসায় আজ ৬০ টি অসহায় পরিবার প্রায় ১ সপ্তাহ পেট ভরে খেতে পারবে ।এবং তারা নিজে গিয়ে দরিদ্রদের বাসায় বাসায় পৌঁছে দিয়ে আসে ত্রাণ সামগ্রি। তাদের প্রত্যেক পরিবার ৫ কেজি চাল , ২ কেজি আলু , ১/২ লিটার তেল , ১কেজি ডাল , ১/২ কেজি পিঁয়াজ , ১/২ কেজি লবণ , ১ টি সাবান ও সমানুপাতিক হারে ডিম পেয়েছে । ছাত্রদের এই কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়েছে স্থানীয় জন প্রসাশন । এই ছাত্রদের পরোক্ষভাবে সাহায্যে ছিলেন আরো অনেকে । শুধু আজ এই বটতলায়ই না বটতলার মত আরো আরো অনেক স্থানে এভাবেই অসহায় দের পাশে দারাচ্ছে ছাত্রসমাজ । করোনা মকাবেলায় আজ ডাক্তারদের যদি আমরা সেই ৭১ এর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে তুলনা করি তবে এই ছাত্র এবং স্বেচ্ছাসেবকরা হলেন মিত্রবাহিনী ।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ