আজ ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুন, ২০২৪ ইং

সাভারে মসজিদ ভাঙায় যুবদল সভাপতি রাজু গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ঢাকার সাভারে একটি মসজিদ ভাঙচুর ও মসজিদ কমিটির সভাপতির ছেলেকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মূল অভিযুক্ত যুবদল নেতা রাজু আহমেদকে(৩৮) গ্রেফতার করেছে সাভার মডেল থানা পুলিশ। রাজু আহমেদ বিএনপির অঙ্গসংগঠন সাভার উপজেলাধীন তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি।

বৃহস্পতিবার (০৭ অক্টোবর) রাত ১১ টায় গ্রেফতারের বিষয় নিশ্চিত করেন সাভার থানাধীন ট্যানারী পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক(এসআই) সুজন সিকদার।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার হত্যা চেষ্টা ও মসজিদ ভাংচুর মামলার প্রধান আসামী রাজুকে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় কামরাঙ্গীচর থানাধীন ঝালুহাটি রাজুর শ্বশুরবাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত রাজু আহমেদ(৩৮) সাভারের রাজফুলবাড়িয়া এলাকার হারাননগর গ্রামের গোলাম হোসেনের ছেলে। রাজু আহমেদের ভাই এজহার নামীয় আরেক আসামী মান্নান(৩৩) এখনো পলাতক রয়েছে।

এজাহার থেকে জানা যায়, গত ২৩ জুলাই জুম্মার নামাজের পর সাভারের রাজফুলবাড়িয়া এলাকার হারাননগর বাইতুল জান্নাত জামে মসজিদে ভাঙচুর চালায় রাজু, মান্নান ও তাদের অজ্ঞাত সহযোগীরা।

ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি কাজী আবুল মাজেদ বলেন, জুম্মার দিন নামাজের পর মসজিদের জানালা ভাঙচুরের খবর জানতে পেয়ে মসজিদ দেখতে গেলে আমার ছেলে আবুল কাসেমকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে তারা। আমার ছেলে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ছিল অনেকদিন।

ঘটনার পর আমরা সাভার থানায় অভিযোগ প্রদান করি। ঐদিন মসজিদে করোনাকালীন সময় নিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তি নিয়ে আলোচনা সময় রাজুর বাবা মসজিদ থেকে বেরিয়ে যায়। রাজুর বাবা আমাকে মসজিদের সামনে দাঁড়িয়েই গালগালাজ করছিল। পরে নামাজ শেষ করে বাড়ি চলে গেলে শুনি মসজিদে ভাংচুর চালিয়েছিল তারা।

মসজিদের জানালা ভাংচুর ও হত্যাচেষ্টার ঘটনায় সাভার মডেল থানায় অভিযোগ প্রদানের পর ২৬ জুলাই মামলা রেকর্ড করা হয়। সে মামলাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানায় সাভার মডেল থানা পুলিশ।

এসআই সুজন সিকদার আরো বলেন, এ ঘটনায় বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মসজিদ ভাংচুর ও মারধোরের ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন এই রাজু। আগামীকাল তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ