আজ ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

চাঁদপুরে নিষেধাজ্ঞার পরেও সড়কে যানবাহন ও মানুষের জনসমাগম

ইব্রাহীম খলীল সবুজ – চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ

 

নোবেল করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে চাঁদপুরে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার পরেও করোনা ভাইরাস সচেতনতায় নিষেধাজ্ঞা মানছেন না জনসাধারণের অনেকেই।

সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য রাস্তা ঘাটে কাউকে অতি প্রয়োজন ছাড়া বের না হবার কথা ঘোষণা দেয়া হলেও হাট, বাজার,দোকান পাটে মিলছে মানুষের কম বেশি উপস্থিতি। সড়কে চলছে ছোট বড় বিভিন্ন যানবাহন।

বাংলাদেশে মরণঘাতী করোনা ভাইরাস যাতে ছড়াতে না পারে সেজন্য সরকার গত ২৬ মার্চ থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য সরকারি ছুটি ঘোষণা করেন। একই সাথে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চাঁদপুরের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, স্কুল, কলেজ, সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ঘোষনা দেন এবং শহর কিংবা গ্রামে প্রত্যেক স্থানে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে জনসমাগম এরাতে বিভিন্ন দোকান পাট, ও যানবাহন চলাচল না করার নির্দেশ প্রদান করা হয়।

তারই প্রেক্ষিতে ২৬ মার্চ থেকে চাঁদপুর শহরের বিভিন্নস্থানে চাঁদপুর জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সদস্যরা কঠোর নজরদারি জোরদার করেন। পাশাপাশি সেনাবাহিনী সদস্যদেরও টহল ছিলো।
যাতে করে শহরে কোন প্রকার যানবাহন এবং মানুষজন বাহিরে বের হতে না পারেন।

প্রথম দুই তিন দিন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ভয়ে রাস্তা ঘাটে তেমন কোন যানবাহন কিংবা মানুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি। এমন কি শহরের কোন স্থানেই চায়ের দোকানসহ তেমন কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলতে দেখা যায় নি।

প্রশাসনের এমন ঘোষণার কয়েক দিন পর থেকেই ধীরে ধীরে চাঁদপুর শহরের বিভিন্নস্থানে যানবাহন ও মানুষের উপস্থিতি বাড়তে থাকে।
গত কয়েক দিন ধরে দেখা যাচ্ছে চাঁদপুর শহরের শপথ চত্বর কালী বাড়ি, বাসস্ট্যান্ট, ছায়াবানী মোড়, নতুন বাজার, পুরান বাজার, মিশন রোড, চিত্রলেখা মোড়, চেয়ারম্যান ঘাটা, ওয়্যারলেস সহ শহরের বিভিন্ন সড়কে ট্রাক পিকআপ ভ্যান, রিক্সা অটোরিক্সা সহ বিভিন্ন যানবাহন সড়কে চলতে দেখা গেছে। এসব যানবাহনের সাথে সাথে বাড়ছে মানুষের উপস্থিতিও।

মহামারী করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সচেতনতার লক্ষে এসব জনসাধারনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য বার বার সর্তকতা ও ঘোষনা দিলেও অনেকেই তা না মেনে অন্যান্য স্বাভাবিক দিনের মতোই প্রতিনিয়ত বাহিরে বের হচ্ছেন। তাই ঢিলে ঢালা ভাবেই চাঁদপুরে পালিত হচ্ছে হোম কোয়ারেন্টাইন। জন সাধারনের বাহিরে ঘুরা ফেরার এমন উপস্থিতিতে মহামারী করোনা ভাইরাস ছড়ানোর ঝুঁকি থাকতে পারে বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

অপর দিকে চাঁদপুর সিভিল সার্জন ঢাকা থেকে চাঁদপুরে আগত ব্যাক্তিদেরকেও হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দিলেও তারাও সেই নির্দেশনা না মেনে খোলা মেলা ভাবে গ্রামের মানুষের সাথে চলা ফেরা করছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

খবর নিয়ে জানা গেছে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সচেতনতার লক্ষ্যে সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য গত ২৬ মার্চ সরকারি ভাবে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ছুটি ঘোষনা করা হয়।
আর এই ছুটির সুযোগে ঢাকায় বসবাসরত বিভিন্ন পেশার মানুষ নিজস্থানে না থেকে যার যার গ্রামের বাড়িতে ছুটে চলেন।

একই সাথে ঢাকা থেকে চাঁদপুরেও হাজারহাজার মানুষ বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলে আসেন। কিন্তু সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেয়া হলেও ঢাকা থেকে আগত ব্যক্তিরা তা না করে প্রতিনিয়ত গ্রামের মানুষের সাথে মিলে মিশে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলের মানুষের অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে চাঁদপুর সদর সার্কেল জাহেদ পারভেজ চৌধুরীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন,
আজ থেকে আমরা জেলা পুলিশ আরো কঠোর অবস্থানে থাকবো বিনা কারণে বাহিরে ঘুরাফেরা করা লোকজনকে ঘরে রাখার জন্য পরামর্শ দিবো এবং কঠিন আইন প্রয়োগ করবো।

এছাড়া বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রাম অঞ্চলে যারা বিনা কারনে রাস্তা ঘাটে ঘুরাফেরা করবে এবং শহর ও গ্রামে যারা যানবাহন চালাবে তাদের বিরুদ্ধে করোনা সংক্রমন প্রতিরোধ আইন ২০১৮ ইং এর মাধ্যমে মোবাইল কোট পরিচালনা করে যানবাহন আটক করবো।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ