আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ ইং

গজারিয়ায় স্বামীর নির্যাতনের শিকার এক সন্তানের জননী  

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি : 

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় যৌতুকের দাবি মেটাতে না পারায় স্বামীর অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক সন্তানের জননী মনিরা বেগম। তিনি গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। মনিরা বেগম উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের নাগেরচর গ্রামের মৃত হযরত আলীর মেয়ে।গত সোমবার ৩১ মে রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে গজারিয়া ইউনিয়নে নাগেরচর আশ্রয়ণ প্রকল্পে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার সকালে মনিরা বেগম এর মা দেলোয়ারা বেগম গজারিয়া থানা একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরিবার সূত্রে জানা যায়, তিন বছর আগে মনিরা বেগমের সাথে রিপন মোল্লার সাথে পারিবারিক ভাবে বিবাহ হয়। বিবাহের পর থেকে যৌতুক লোভী স্বামী (রিপন) ও তার মা রীনা বেগম যৌতুকের দাবি করে আসছে। এরই জের ধরে সোমবার রাতে কাডের ডাসা দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। পরে স্থানীয়রা মনিরা বেগম কে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

মনিরা বেগম কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, বিবাহের পর থেকে যৌতুকের জন্য চাপ দেয় শশুরবাড়ীর পরিবার। চাহিদা মতো টাকা না দেতেপারায় সোমবার রাতে আমার উপর শারীরিক নির্যাতন করে। পরে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে আমার আড়াই বছরে সন্তানকে নিয়ে ওই রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। যৌতুক লোভী স্বামী, শশুড়ির বিরুদ্ধে তার উপর শারীরিক নির্যাতনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন। মনিরা বেগমের মা দেলোয়ারা বেগম জানান, তার মেয়েকে বিয়ের পর থেকেই মারপিট করে যৌতুকের টাকা চেয়ে আসছিল। তার সন্তানের ওপর অমানবিক নির্যাতনের বিচার চান। এবিষয়ে গজারিয়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: রইছ উদ্দিন জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ