আজ ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

ধামরাইয়ে প্রতিবন্ধীর রাস্তা বন্ধ করে টাকা দাবী

নিজস্ব প্রতিবেদক

 

ঢাকার ধামরাইয়ে প্রতিবন্ধী ও অসহায়ের পরিবারের চলাচলের রাস্তা করে রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

রবিবার (১ মার্চ) ধামরাই থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে ভুক্তভোগী শহিদুল ইসলাম। শহিদুল ইসলাম জানায় ধামরাই থানার সোমভাগ ইউনিয়ন ৭নং ওয়ার্ডের মহিলা মাদ্রাসার উত্তর ও পৃর্ব পাশে তার শ্বশুর বাড়ি, শ্বশুর বাড়িতে তার শাশুড়ী ও প্রতিবন্ধী শ্যালক ছাড়া আর কেউ নেই।

সাধারণ ডায়েরি সূত্রে জানা যায়, ৭ শতাংশ জমিতে গত ৪ বছর ধরে ১ তলা ভবন নির্মান করে বসবাস করে আসছে ভুক্তভোগী। ভবনের পাশের সরু রাস্তা দিয়ে ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী পরিবার ও আশেপাশের প্রায় ৩০ টি বসতবাড়ি রয়েছে এবং লোকজনসহ প্রায় ৩শত লোকের চলাচল করে আসছিলো। ওই রাস্তা ছাড়া লোকজনের চলাচলের কোন রাস্তা নাই। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১ টার দিকে আব্দুল জলিল পাগলা (৫০), আফজাল (২৮) ও মহসিন (২৪) তাদের জমির ওপর দিয়ে দেয়াল নির্মান করে পরিবারের লোকজনসহ আশেপাশের লোকজনের যাতায়াত বন্ধ করে দেয়।

শহিদুল ইসলাম বলেন, অভিযুক্তদের আশ্বাসে তিনি বাড়ি নির্মান করেছিলেন। কিন্তু তারা রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে বছরে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। শহিদুল ইসলাম বলে তিনি ১৫ হাজার টাকা পরিশোধ করেছে।

অভিযুক্ত আফজাল বলেন, আমরা আমাদের জমির ওপরে দেয়াল দিয়েছি। তারা ৫০ হাজার টাকা দিতে চেয়ে ওই জমির কিছু অংশে ফসল ফলানো থেকে বিরত রাখে। টাকা না দেওয়ার কারনে দেয়াল নির্মান করেছি।

প্রতিবন্ধী আব্দুল গফুর বলেন, আমাদের রাস্তা দেওয়ার কথা বলে তারা ৫০ হাজার টাকা দাবী করে । কিন্তু তারা রাস্তা না দিয়ে উল্টো দেয়াল নির্মানের মাধ্যমে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে।
ধামরাই থানার সোমভাগ ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য কে বিষয়ে জানানো হলে তিনি বলেন গত বছর চেয়ারম্যান এর নির্দেশে রাস্তা আমি করেছি দিয়েছি। চলাচলের রাস্তা কেউ বন্ধ করতে পারে না। আমি অবশ্যই চলাচলের রাস্তা খুলে দিবো।

ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, এব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ