আজ ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই মে, ২০২১ ইং

আশুলিয়ায় পিবিআই পুলিশ সদস্যকে মারধর, থানায় মামলা দায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক

 

আশুলিয়ায় রাস্তার মাটিকাটাকে কেন্দ্র করে তর্ক-বিতর্কের জেরে পিবিআই পুলিশের এক সদস্যকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। এসময় তার চিৎকারে স্ত্রী ও মেয়ে এগিয়ে আসলে তাদেরকে পিটিয়ে আহত করে হামলাকারীরা। পরবর্তীতে হামলাকারীরা ওই পুলিশ সদস্যের বাড়িঘরে ভাংচুর চালায় এবং নদগ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এঘটনায় এলাকাবাসীরা তাদেরকে উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ষে ভর্তি করেন। মঙ্গলবার সকালে ভুক্তভোগীর নিজ বাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।
আহতরা হলো- ঢাকার আশুলিয়া থানার শিমুলিয়া নতুনবন্দর গ্রামের মৃত আঃ হাফিজ দেওয়ানের ছেলে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য মোঃ আব্দুল কুদ্দুস (৬০), তার স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৪৮) এবং মেয়ে আকলিমা আক্তার (২৮)।
এঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই আহত পুলিশ সদস্য আব্দুল কুদ্দুস বাদি হয়ে হামলাকারীদের নাম উল্লেখ করে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত মঙ্গলবার সকালে আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের নতুনবন্দর গ্রামে পিবিআই পুলিশ সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের বাড়ির দক্ষিন পাশে রাস্তার মাটিকাটাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে ওই গ্রামের মোঃ ইসরাফিলের স্ত্রী মোসাঃ সেলিনা (২৩), পাশ^র্তী রায়পাড়া গ্রামের সামশুল হকের ছেলে মোঃ সুজন (২৬), পারভেজ হোসেন (২৮), তীর্থঘাট গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মোঃ সোহেলসহ (৩৪) অজ্ঞাত পরিচয় ৩/৪ জন ব্যক্তি তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে লোহর রড দিয়ে পিটিয়ে মারধর করে এবং আমার পকেটে থাকা নগদ দশ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এসময় ওই পুলিশ সদস্যের ডাক-চিৎকার তার স্ত্রী সুফিয়া বেগম এবং মেয়ে আকলিমা আক্তার এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা তাদেরকেও মারধর করে। এঘটনায় গ্রামবাসীরা তাদেরকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা ওই পুলিশ সদস্য এবং পরিবারের সদস্যদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে আহতদেরকে উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্ষে ভর্তি করেন গ্রামবাসীরা। সেখানে চিকিৎসা নিয়ে রাতেই ভুক্তভোগী পুলিশ সদস্য বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিলে সেটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়।
আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাহিদ হাসান বলেন, পিবিআই পুলিশের এক সদস্যের বাড়িতে হামলা চালিয়ে পুলিশ সদস্যসহ তার স্ত্রী ও মেয়েকে মারধরের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এঘটনায় ভুক্তভোগী পুলিশ সদস্য বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতেই আশুলিয়া থানায় একটি মামলা (নং-৮২) দায়ের করেছেন। আমরা অভিযুক্ত আসামীদেরকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছি। খুব দ্রুত হামলাকারীদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান তিনি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ