আজ ২৬শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

আশুলিয়ায় গণধর্ষণের মামলায় গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকার আশুলিয়ায় এক পোশাক কারখানার নারী নিরাপত্তাকর্মীকে গণধর্ষণের অভিযোগে দুই বখাটেকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ৩ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (ডিউটি অফিসার) আজহার উদ্দিন।

এর আগে সেমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯ টার দিকে আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার আরিফের বাসায় এঘটনা ঘটে। পরে গভীর রাতে টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের নরসিংহপুর এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এঘটনায় অভিযুক্ত আরো একজন পলাতক রয়েছে।

অভিযুক্তরা হলেন- আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার মৃত জামাল মোল্লার ছেলে মো: আরিফ হোসেন, একই এলাকার মৃত জলিল সরকারের ছেলে রানা সরকার ও নাটোর জেলার লালপুর থানার মো: সামিউল ইসলাম মৃধা সোহান। এদের মধ্যে মো: আরিফ হোসেন ও রানা সরকারকে আটক করেছে পুলিশ।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী পোশাক কারখানার নারী নিরাপত্তাকর্মী ও অভিযুক্ত সোহান একই কারখানায় চাকরি করার সুবাদে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে গতকাল সেমবার (২৪ফেব্রুয়ারি) বান্ধবীর বাসা থেকে নিজ ভাড়া বাসায় ফেরার পথে প্রেমিক সোহানের সাথে দেখা হয়। অভিযুক্ত সোহান ভুক্তভোগীর বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে নরসিহপুর এলাকার আরিফের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে আগে থেকেই আরিফ ও রানা অবস্থান করছিলো। পরে আরিফের কক্ষে প্রেবেশ করিয়ে দরজা লাগিয়ে তাকে জোরপুর্বক পালাক্রমে তিনজনই ধর্ষণ করে বাসা থেকে বের করে দেয় অভিযুক্তরা। ঘটনা কাউকে জানালে আবার তুলে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে তাকে। বাসা থেকে বের হয়ে ভুক্তভোগী থানায় অভিযোগ করলে অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই দুইজনকে আটক করে পুলিশ। অভিযুক্ত রানা আগেও একটি গণধর্ষণ মামলায় সাজা ভোগ করে সদ্য জেল থেকে বেরিয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (ডিউটি অফিসার) আজহার উদ্দন বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই দুইজনকে আটক করা হয়েছে। পরে সকালে এ ঘটনায় মামলা দায়ের হলে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়। সেই সাথে বাকি অভিযুক্তকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। ভুক্তভোগীকে তার স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের (ঢামেক) ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ