আজ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

আশুলিয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

আশুলিয়া প্রতিনিধি:

আশুলিয়ায় একটি কওমি মাদ্রাসার ১২ বছর বয়সী ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে একই মাদ্রাসার শিক্ষক ছলিম আহমদকে (২৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে আশুলিয়ার ভাদাইল পবনারটেক এলাকায় মারকাজুল কুরআন ও সুন্নাহ মাদ্রাসা থেকে ওই শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়। এঘটনায় ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বুধবার আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
ধর্ষণ চেষ্টায় জড়িত গ্রেফতারকৃত ছলিম আহমদ মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা থানাধীন মাইজগ্রাম এলাকার সমছ উদ্দিনের ছেলে। সে আশুলিয়ার ভাদাইলের পবনারটেক এলাকার মারকাজুল কুরআন ও সুন্নাহ মাদ্রাসার শিক্ষক।
এঘটনায় ভুক্তভোগি ওই ছাত্রীর পিতা ওমর আলী বাদি হয়ে আশুলিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, সে পেশায় একজন গাড়ি চালক এবং তার স্ত্রী একটি পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন। তাদের ১২ বছর বয়সী একমাত্র মেয়ে বাসা সংলগ্ন কওমি মাদ্রাসায় ৩য় শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। মাদ্রাসার শিক্ষক ছলিম আহমদ আমার মেয়েকে বিভিন্ন সময় জড়িয়ে ধরে এবং তার শরীরের স্পর্শকাতর অঙ্গে হাত দেয়। গত ১০ জানুয়ারি সকাল অনুমান ১০টায় উক্ত শিক্ষক আমার মেয়েকে ডেকে নিয়ে তাকে জড়িয়ে ধরে। একপর্যায়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় মেয়ের ডাক চিৎকারে তাকে ছেড়ে দেয়। এ ঘটনা কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলারও হুমকি দেয়া হয়। সেই থেকে তার মেয়ে ওই মাদ্রাসায় যায় না। তাকে মাদ্রাসায় যেতে বললে, সে কান্নাকাটি করে। একপর্যায় মেয়ে এসব ঘটনা জানালে তারা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক ইউনুস বলেন, থানায় লিখিত অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে বুধবার এঘটনায় মামলা দায়েরের পর গ্রেফতারকৃতকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ