আজ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইসোলেশন সেন্টার থেকে করোনা আক্রান্ত রোগী পালিয়েছে

 

হাসনাত কাইয়ূম,সরাইল প্রতিনিধি :

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নার্সিং ইনস্টিটিউট আইসোলেশন সেন্টার থেকে কেফায়েত উল্লাহ (৩৮) নামের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পালিয়েছে। তার বাড়ি জেলার সরাইল উপজেলার পানিশ্বর ইউনিয়নের টিঘর গ্রামে। পিতার নাম মৃত আনোয়ারুজ্জামান।

সোমবার (৮ জুন) দুপুরে আইসোলেশন সেন্টারের দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক একরামুল রেজা টিপু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রোববার বিকেলের পর হাসপাতালের সেবা কর্মীরা হঠাৎ দেখতে পান যে, রোগী ওয়ার্ডে নেই। খোঁজাখুঁজির পর বুঝা যায় রোগী পালিয়ে গেছে।রোগীর পরিবারের লোকেরাও জানান যে তিনি বাড়ি ফেরেননি।

এরআগে শনিবার (৬ জুন) ব্রাহ্মণবাড়িয়া নার্সিং ইন্সটিটিউট আইসোলেশন সেন্টার থেকে সাত জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। ধারণা করা হচ্ছে ওই সময়ে কেফায়েত উল্লাহ নামে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পালিয়ে গেছেন৷

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ শওকত হোসেন জানান, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পালিয়ে যাওয়ার পর, জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে। হাসপাতাল থেকে থানায় জিডি করা হয়েছে।

সদর মডেল থানার এস আই আব্দুল সামাদ জানান, রোগীর খোঁজে পুলিশ বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি চালাচ্ছে। আক্রান্ত রোগীকে উদ্ধারের জন্য চেষ্টা চলছে। তিনি আরোও জানান, সেই সঙ্গে হাসপাতালে পুলিশ প্রহরা বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আনাস ইবনে মালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সোমবার বিকেলে এ প্রতিবেদককে জানান, করোনা আক্রান্ত রোগী কেফায়েত উল্লাহ আইসোলেশন সেন্টার থেকে পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি কর্তৃপক্ষ আজ (সোমবার) চিঠি দিয়ে আমাদের জানিয়েছে। কেফায়েত উল্লাহ’র বাড়ি সরাইল উপজেলায় হলেও তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরে গিয়ে করোনা পরীক্ষা করান এবং সেখানে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে, তাই করোনা রোগী হিসেবে সরাইলের তালিকায় তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়নি।

তিনি কেফায়েত উল্লাহ’র সন্ধান পেতে মিডিয়ার সহযোগিতা চেয়ে এই চিকিৎসা কর্মকর্তা জানান, তিনি (কেফায়েত উল্লাহ) আইসোলেশন সেন্টার থেকে পালিয়ে গিয়ে গুরুতর অপরাধ করেছেন। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ