আজ ২৬শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

ফেনীতে কাজের সন্ধানে নিম্ন আয়ের মানুষ

 

 

আলাউদ্দিন সবুজ. ফেনী জেলা প্রতিনিধি:  

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে দেশের বিভিন্ন জেলার ন্যায় ফেনীতেও চলছে অঘোষিত লকডাউন। জেলার বিভিন্ন হাট-বাজার, দোকান-পাট, হোটেল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দিন এনে দিন খায় এই শ্রেণির মানুষ কাজের সন্ধানে ছুটে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়।
আজ বুধবার সকালেও ট্রাংক রোডে দলবেঁধে বেরিয়েছেন তারা। জেলার বিভিন্ন এলাকায় কাজের সন্ধানে ছুটতে ও কাজের অপেক্ষায় থাকতে এসব নিম্নআয়ের খেটে খাওয়া মানুষদের দেখা যায়।
সরেজমিন দেখা যায়, ভোর থেকেই ট্রাংক রোডে শ্রমিকের হাট বসে। ওই হাটে জড়ো হয় বিভিন্ন বয়সী দিনমজুররা। বেকার হয়ে পড়া এসব নিম্ন আয়ের মানুষ জীবিকার তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ছুটছেন কাজের সন্ধানে। লোকজন না আসায় অনেকে বাসায় ফিরে গেছেন।
একাধিক দিনমজুর জানিয়েছেন, উপার্জন করে যা জমা করে ছিলাম তা দিয়ে কয়েকদিন ধরে চললাম। এখন দুই বেলা নুন ভাত খাওয়ার মত। ঘরে কিছু নাই। তাই জীবন ও সংসার বাঁচানোর জন্য কাজের সন্ধানে বের হয়েছি। কিন্তু কাজ তো পাচ্ছি না তাই বসে আছি।
এদিকে জেলা প্রশাসন, বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক, স্বেচ্ছাসেবী ও ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেও তা অনেকাংশে পায়নি বলে অভিযোগ ভাসমান ও দিনমজুরদের।
পৌরসভার প্যানেল মেয়র আশ্রাফুল আলম গীটার জানান, দিনমজুরদের বেশিরভাগই অভ্যাসগত কারনে কাজের খোঁজে বেরিয়েছে। অথচ জেলায় নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি, জেলা প্রশাসন ও পৌরসভা সহ বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যক্তি উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে।
সদর উপজেলা নির্বাাহী কর্মকর্তা নাসরীন সুলতানা ফেনীর সময় কে জানান, সদর উপজেলার পৌরসভা ও ১২ ইউনিয়নে তিনধাপে ৮৯ মেট্টিক টন চাউল বরাদ্ধ এসেছে। এর মধ্যে ৬৩ মেট্টিক টন বিতরণ হয়েছে। মঙ্গলবারও ২শ ৬০ জন শ্রমজীবীকে নিত্যপণ্য দেয়া হয়েছে।
জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক মো: ওয়াহিদুজ্জামান বলেছেন, প্রতিদিনই জেলার বিভিন্ন স্থানে নিম্মবিত্ত ও অসহায়দের ত্রাণ দেয়া হচ্ছে। হটলাইনে খবর পেয়েও নিম্মবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের ত্রাণ পৌছানো হয়।
তিনি বলেন, এদের অনেকেই ভাসমান। অভ্যাসগত কারনে তারা ঘর থেকে বেরিয়েছে। তাদের জন্য পর্যাপ্ত খাদ্যসামগ্রী মজুদ রয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ