আজ ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২৪ ইং

কামারখন্দে স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছে সাপ্তাহিক পশুর হাঁট

​​নিজস্ব প্রতিবেদক :

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সারাদেশে চলছে লকডাউন। এ কারণে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। যদিও বের হয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। কিন্তু সরকারি বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে হাজারও মানুষের সমাগম হয়েছে। সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলায় সাপ্তাহিক পশুর হাঁটে। সামাজিক দূরত্ব না মেনে ও মুখে মাস্ক না নিয়েই গাঁদাগাঁদি করে চলছে পশু বেচা-কেনা।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কামারখন্দে হাঁট খোলার পশুর হাঁট বসে প্রতি মঙ্গলবার।

সাপ্তাহিক পশুর হাঁট হওয়ায় মানুষের জনসমাগম বেশি হয় । এদিকে ঈদকে সামনে রেখে সপ্তাহের শেষ হাঁট হওয়ায় ভিড়টা আরো বেশি হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ মে) সকালে ঘুরে দেখা যায়, ক্রেতা-বিক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় এক জনের সাথে অপরজনের গা ঘেঁষে চলাচল করছেন। অধিকাংশ মানুষের মুখে মাস্ক নেই। মানা হচ্ছে না কোনো ধরনের স্বাস্থ্যবিধি।

নসিমন, পিকআপসহ নানা ধরনের গাড়ি করে আসছে ক্রেতা-বিক্রেতারা।

সচেতন নাগরিকরা বলছে ‘সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করে চলছে হাঁট। হাঁট নয় যেন করোনা চাষ হচ্ছে। প্রশাসনের কোনো পদক্ষেপ নেই।

হাঁটে আসা কয়েকজন ক্রেতা -বিক্রেতারা জানান, করোনা বলতে তেমন কিছু নাই আর করোনা তো গরীবদের হবে না যারা বড়লোক তাদের হবে। আর করোনার ভয়ে থাকলে আমাদের সংসার চলবে কিভাবে।

এ বিষয়ে হাঁট কমিটির পক্ষে থেকে বলা হচ্ছে মাইকিং এর মাধ্যমে আমরা চেষ্টা করছি স্বাস্থ্যবিধি ও মাস্ক পড়ে হাঁটে প্রবেশ করার জন্য কিন্তু সাধারণ মানুষ না শুনলে আমাদের কি করার আছে।

এ বিষয়ে কামারখন্দ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেরিনা সুলতানা জানান, হাঁট কমিটি বা বাজার কমিটিকে চিঠির মাধ্যমে বলা হয়েছে তারা যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাঁট পরিচালনা করেন। তারপরেও যদি আমরা গিয়ে দেখি স্বাস্থ্যবিধি না মেনে হাঁট চলছে তাহলে ভ্রাম্যমাণ দিয়ে জরিমানা করা হবে।

সরকারিভাবে হাঁট বসানোর নিয়ম আছে কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাঁট বসানোর নিয়ম আছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ