আজ ২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৭ই মে, ২০২১ ইং

আশুলিয়ায় মরিচের গুড়া ছুড়ে হামলা আহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক :

আশুলিয়ায় নিজের গাছের আম পারতে যাওয়ায় পার্শবর্তী বাড়ির লোকজনের হামলার শিকার হয়েছেন আওলাদ হোসেন ও তার পরিবার। এসময় মরিচের গুড়া ছুড়ে তাদের ওপর হামলা করলে দুই জন আহত হন। এঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী আওলাদ হোসেন।
শনিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে আশুলিয়া থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪ থেকে ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী। এর আগে বুধবার (১৫ এপ্রিল) আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউনিয়নের চারিগ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
মামলার আসামীরা হলেন, সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার চারিগ্রাম দক্ষিনপাড়া এলাকার মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে মোঃ মোকছেদ আলী (৪৮), তার স্ত্রী মোসা: শান্তা বেগম (৪৫), তার তিন মেয়ে যথাক্রমে আকলিমা খাতুন (২৬), মোসাঃ রোজিনা (২৮) এবং মোসাঃ জামিনা বেগম (২২)। এ মামলায় আরও অজ্ঞাতনামা ৪ থেকে ৫ জনকে আসামী করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী আওলাদ হোসেন বলেন, ১৪ এপ্রিল আমার পৈত্রিক জমির গাছে আম পারতে যায় আমার ভাই-ভাতিজারা। ওই জমিকে নিজের বলে দাবি করা শান্তা বেগম তার স্বামী ও ৩ মেয়ে নিয়ে আমার ভাতিজা মেহেদী (২৭) কে মারধোর করে। আমি ঘটনা জানতে পেরে মেহেদীকে উদ্ধার করার জন্য গেলে আমাদের উপর মরিচের গুড়া পানিতে মিশিয়ে ছুড়ে মারে। পরে লাঠিসোটা, বটি, দা নিয়ে আমাদের উপর অতর্কিত আক্রমণ করে বসে। মরিচের গুড়ো চোখেমুখে লাগলে জ্বলতে শুরু করে। এসময় চোখ খুলতে না পারার সুযোগে আমার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে মোঃ মোকছেদ আলী। এতে আমার মাথা ফেটে যায়। এরপর আমার ভাতিজা মেহেদী ও আমাকে আশেপাশের মানুষ উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। আমার মাথায় ৪ টি সেলাই দেয়া হয়েছে। পরে জানতে পারি তারা নিজেরাই নিজেদের বাড়িঘর ভাংচুর করে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে পুলিশ ডেকে এনে আমাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করে।
তিনি আরো বলেন, যে জমিতে আম গাছ সে জমি আমার পৈত্রিক সম্পত্তি। কিন্তু বিবাদীরা জোরপূর্বক আমার জমি দখল করার পায়াতারা করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। এর আগে তারা আদালতে এই জমি নিয়ে মামলা দায়ের করেছিল। সেই মামলার রায় আমাদের পক্ষে আসার পর থেকে তারা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। এর আগে ওই জমি নিয়ে স্থানীয় মেম্বার ও চেয়ারম্যান বিচার-শালিশ করে আমাদের পক্ষেই রায় দিয়েছিল। তারা সমস্ত কিছু জানেন। যারা আমার উপর হামলা করছে তাদের বিচার চাই।
এ ব্যাপারে সাভারের পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার শফিউল আলম সোহাগ বলেন, গত ৭ বছর ধরে তাদের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধের কথা শুনে আসছি। আমরা স্থানীয় ভাবে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করে আসলেও কাজ হয়নি। আমরা যতদূর জানি এ জমির প্রকৃত মালিক আওলাদ হোসেন। অপরপক্ষের কাছে এ জমি সংক্রান্ত কোন কাগজ পত্র না থাকলেও তারা জমি নিজেদের বলে দাবি করে আসছে।
এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মোঃ কায়সার হামিদ বলেন, আভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছি। জানতে পেরেছি, বাদী বিবাদীর মধ্যে পূর্ব থেকেই জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। বিরোধের জেরে এক পক্ষের ওপর হামলার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ