আজ ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২৪ ইং

বিয়ের দাওয়াতে এসে না ফেরার দেশে চলে গেলো  নারী ,আটক ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, আতিক খাঁন :

রাজশাহী পুঠিয়া ভাইয়ের বিয়ের দাওয়াতে এসে বাড়ি ফেরা হলো না টুম্পা খাতুন (২৮) নামের এক হতভাগা বোনের।
শুক্রবার বিকাল ৩টায় ভাই বৌকে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের ঝলমলিয়া মুরাদের পাম্পের সামনে মালবাহী ট্রাকের সাথে মোটরসাইকেল ধাক্কা লাগাতে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মারা যায় টুম্পা। এসময় সৌভাগ্য ক্রমে বেঁচে যায় তার মেয়ে ও স্বামী আবু সামা।

নিহত টুম্পা পুঠিয়া পৌরসভার কাঁঠালবাড়িয়া ৮ নং ওয়ার্ডের আবু সামার স্ত্রী। টুম্পার স্বজনরা জানান, নিহত টুম্পার ভাইয়ের বিয়েতে বড়যাত্রী হয়ে সে তার স্বামী ও মেয়ে তোয়াসহ আতীয়স্বজনেরা বিয়েতে যায়। বিয়ে শেষে বৌকে নিয়ে বড়যাত্রীসহ মোটরসাইকেলে যোগে নিহত টুম্পা ও তার স্বামী আবু সামা মেয়েসহ বাড়ি ফিরছিলো। পথের মধ্যে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের ঝলমলিয়া পাম্পের সামনে পৌছানো মাত্রই আবু সামার মোটরসাইকেলের সাথে বরযাত্রীর অপর এক মোটারসাইকেল পাশাপাশি থাকায় দুই মোটরসাইকেলের সাংঘর্ষ হয়।

এতে মোটরসাইলে থাকা আবু সামা ও তার স্ত্রী টুম্পা মেয়ে তোয়া মহাসড়কে ছিটকে পড়ে। এসময় অপর দিক থেকে একটি মালবাহী ট্রাকের চাকায় টুম্পা পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এসময় নিহত টুম্পার স্বামী সামা মোটরসাইকেল থেকে পড়ে আহত হয়। আহত সামাকে পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সৌভাগ্যক্রমে শিশু তোয়ার কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। খবর পেয়ে পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি ঘটনা স্থলে থেকে ট্রাকটিকে আটক করে।

এব্যাপারে শিবপুর পবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ লুৎফর রহমান জানান, নিহতের আত্মীয়-স্বজনের আবেদনের প্রেক্ষিতে লাশ ময়না তদন্ত ছাড়াই তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আটক ট্রাক ড্রাইভার বাবুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ