আজ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং

কক্সবাজারে পালিত হচ্ছে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ১৬ দিনের কর্মসূচি

সাজন বড়ুয়া সাজু :

সমাজের নারীদের প্রতি বিভিন্ন সহিংস কর্মকান্ড প্রতিরোধে এ বছর “নারীর জন্য বিনিয়োগ – সহিংসতা প্রতিরোধ” এই শ্লোগানে ১৬ দিনের কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

প্রতি বছর আন্তর্জাতিকভাবে ২৫ নভেম্বর থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৬ দিনের কর্মসূচি পালন করা হয়। ষোল দিনের এই কর্মসূচীর উদ্দেশ্য হচ্ছে বছরের প্রতিটি দিন নারীরা সমাজে এবং কর্মক্ষেত্রে যে সহিংসতার শিকার হচ্ছে সেটি রোধে নারী-পুরুষ সকলে সোচ্চার এবং পরিবর্তনের দূত হয়ে উঠা।
ষোল দিনের কর্মসূচি উপলক্ষ্যে ইউএসএআইডি’র অর্থায়নে ওয়ার্ল্ডফিশের ইকোফিশ-২ প্রকল্পের বাস্তবায়ন এলাকাগুলোতে সচেতনতামূলক আলোচনা সভা, বিকল্প আয়মূলক কাজের প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে। এ উপলক্ষ্যে ২৮ তারিখ মঙ্গলবার কক্সবাজার সদর উপজেলার এডিবি হ্যাচারী সম্মেলন কক্ষে মৎস্যজীবী পরিবারের নারীদের আয় ও পুষ্টি উন্নয়ন দল (উইং) এর সদস্য, মৎস্য সংরক্ষণ দল (এফসিজি) এর সদস্য, ব্লু-গার্ড, মাছঘাট সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটি (এলএফসিসি) এর সদস্যসহ মৎস্য সেক্টরের বিভিন্ন অংশীজনদের উপস্থিতিতে দিনব্যাপী আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আঞ্চলিক মৎস্য কর্মকর্তা জনাব তৌফিকুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র উপেজলা মৎস্য কর্মকর্তা জনাব তারাপদ চৌহান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ইকোফিশ-২ প্রকল্পের জেন্ডার স্পেশালিষ্ট রেজওয়ানা শারমিন, গবেষণা সহযোগী, গবেষণা সহকারী, স্থানীয় ইমাম ও অন্যান্যরা।
ষোল দিনের কার্যক্রমের মধ্যে প্রকল্পের আওতায় আগামী ০৩-১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত সাত দিনব্যাপী ৪৪ জন মৎস্যজীবী পরিবারের নারী সদস্যদের সেলাই কাজের উপর হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।
প্রান্তিক মৎস্যজীবী পরিবারের নারীদের কর্মসংস্থানের জন্য কাজ করছে ইউএসএআইডি’র ইকোফিশ-২ প্রকল্প। এ বছর প্রকল্প থেকে ৩০০০ মৎস্যজীবী পরিবারের নারীকে প্রশিক্ষণ ও বিভিন্ন বিকল্প আয়বর্ধনমূলক কাজের উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে যেন তারা পরিবারে আয় ও নানা উন্নতিতে অবদান রাখতে পারে। সে সাথে মৎস্যজীবীগণও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে ভূমিকা রাখতে পারে সে বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ