আজ ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুন, ২০২৪ ইং

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

মোঃ সাইফুল আলম,  নিজস্ব প্রতিবেদক :

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের সুবিদখালী সরকারি কলেজ রোড এলাকার ভাড়া বাসা থেকে মোঃ মুন্না হাওলাদার (২১) নামের এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে মির্জাগঞ্জ থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (১০ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১২টার দিকে। নিহতের পিতার অভিযোগ ‘ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে’।এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে থাকা নিহতের স্ত্রী হীরা আক্তার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মোবাইলে রং নাম্বারের সূত্র ধরে প্রেমের সর্ম্পকে একই উপজেলার আমড়াগাছিয়া ইউনিয়নের ছোট ছৈলাবুনিয়া গ্রামের মামুন হাওলাদারের পুত্র মুন্না ও মির্জগঞ্জ ইউনিয়নের উত্তর মির্জাগঞ্জ গ্রামের মোঃ জাকির জোমাদ্দারের কন্যা হীরা আক্তার তিন মাস পূর্বে বিয়ে করেন। নিহত মুন্না ১৫দিন পূর্বে স্ত্রী হীরা আক্তারকে নিয়ে উপজেলার সুবিদখালী সরকারি কলেজ রোড এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন।নিহত মুন্না পেশায় যাত্রীবাহী মাহিন্দ্র’র চালক ছিলেন। প্রতিদিনের ন্যায় শনিবার রাতে খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন দম্পতি। রাত সাড়ে ১২টার দিকে অজ্ঞাত শব্দে স্ত্রী হীরা আক্তারের ঘুম ভেঙে গেলে তিনি তার ব্যবহৃত ওড়না দিয়ে নিজের হাত পা বাঁধা দেখে স্বামীকে ডাক দিলে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে মুখ দিয়ে হাত পা’র বাঁধন খুলে লাইট জ্বালিয়ে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় স্বামীকে ঝুলে থাকতে দেখে ডাক-চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে মরদেহ ঝুলে থাকতে দেখে থানা পুলিশে খবর দিলে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।নিহতের পিতা মোঃ মামুন হাওলাদার অভিযোগ করেন, আমার ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে, আমার ছেলে আত্মহত্যা করতে পারে না।মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মহিবুল্লাহ জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কেউ হত্যা মামলা করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ