আজ ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুন, ২০২৪ ইং

সরাইলে ঈশা খাঁ পরিষদ ও পাঠাগারের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

সরাইল প্রতিনিধি :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইলে প্রধান মসনদে আলা ঈশা খাঁ স্মরণে প্রস্তাবিত “ঈশা খাঁ পরিষদ ও পাঠাগার” এর গঠনতন্ত্র ও কার্যনির্বাহী কমিটি অনুমোদনকল্পে “ঈশা খাঁ পরিষদ ও পাঠাগার” এর সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ ৩০ মার্চ মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় সরাইল উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রধান মসনদে আলা ঈশা খাঁ স্মরণে প্রস্তাবিত “ঈশা খাঁ পরিষদ ও পাঠাগার” এর গঠনতন্ত্র ও কার্যনির্বাহী কমিটি অনুমোদনকল্পে ঈশা খাঁ পরিষদ, সরাইল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর উদ্যোগে এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন ঈশা খাঁ পরিষদ ও পাঠাগার এর স্বপ্নদ্রষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং বাংলা ব্যকরণ এর রীতিনীতি বইয়ের লেখক, গবেষক সরাইলের কৃতি সন্তান অধ্যাপক ডক্টর শাহজাহান ঠাকুর। সরাইল শাহবাজপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলী মাষ্টারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন হতে তেলাওয়াত করেন সরাইল বিকাল বাজার শাহী জামে মসজিদের সম্মানিত খতিব ও ইমাম আলহাজ্ব হযরত মাওলানা শেখ আমান উল্লাহ সাহেব। গীতা পাঠ করেন শিক্ষিকা শেফালী ওয়াস্তি। গঠনতন্ত্র পাঠ করেন সরাইল মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমত আলী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও কলামিস্ট এবং সাবেক দুইবারের সংসদ সদস্য এডঃ জিয়াউল হক মৃধা, বিশেষ অতিথি ছিলেন সরাইল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর, সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম মৃদুল, সরাইল উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া বেগম, সরাইল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মৃধা আহমাদুল কামাল, অরুয়াইল কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ ইকবাল হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চিনাইর বঙ্গবন্ধু কলেজের অধ্যাপক মুহিবুর রহিম,
সরাইলের শহীদ বুদ্ধিজীবির সন্তান এডঃ সৈয়দ তানভীর হোসেন কাউছার, বীর মুক্তিযোদ্ধা এডঃ আব্দুর রাশেদ, সরাইল ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মাহফুজ আলী ও হাজী ইকবাল হোসেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এডঃ জিয়াউল হক মৃধা বলেন, “পাঠাগার তৈরি করার আগে পাঠক তৈরি করা জরুরি”। বিশেষ অতিথি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর বলেন, বাংলার বার ভূঁইয়াদের প্রধান মসনদে আলা ঈশা খাঁ’র জন্মস্থান সরাইল একথা জেনে আমি গর্বিত। তিনি ঈশা খাঁ’র ব্যপারে আরো বিস্তারিত তথ্য জানার জন্য ৩/৫ সদস্যের একটি উপ কমিটি গঠন করার প্রস্তাব করেন এবং এই উপকমিটি গঠন প্রস্তাবকে সমর্থন করেন প্রধান অতিথি। অধ্যাপক মুহিবুর রহিম বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইতিহাস জানতে হলে আগে সরাইলের ইতিহাস জানতে হবে। কারণ একসময় সরাইল ছিলো পরগনা। এই সরাইলের রয়েছে সমৃদ্ধ ইতিহাস। মোগল শাসনামলের অনেক স্থাপত্য এখনো সরাইলে দৃশ্যমান আছে। এখানে জন্মেছেন অনেক ঐতিহাসিক ব্যক্তিবর্গ। বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের বীর ছিলেন সরাইল কালিকচ্ছের সূর্য সন্তান বিপ্লবী উল্লাসকর দত্ত।

অনুষ্ঠানের সভাপতি বক্তাদের মূল্যবান আলোচনা শুনে সবার মতামতের ভিত্তিতে একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে শীঘ্রই প্রকাশ করবেন বলে জানান।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ