আজ ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ ইং

সাংবাদিক শিমুল হত্যার ৪ বছর প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতির কাছে দ্রুত বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্নের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক :

সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলার দীর্ঘসূত্রতা কমিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতির কাছে শিমুল হত্যা মামলাটির বিচার প্রক্রিয়া দ্রুত সম্পন্নের দাবি জানিয়েছেন তার পরিবার ও সহকর্মীরা। বুধবার(৩ফেব্রুয়ারী) সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা এসব দাবি জানান।সমকালের শাহজাদপুর প্রতিনিধি আবদুল হাকিম শিমুল হত্যার চার বছর পূর্ণ হলো (৩ ফেব্রুয়ারী) বুধবার। মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির দাবী জানিয়ে নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে বুধবার দৈনিক সমকালে সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যার চতুর্থ বর্ষপূর্তি পালন করেছেন স্থানীয় সাংবাদিক, সংস্কৃতি কর্মী, শিমুলের পরিবার ও গ্রামবাসি। এ উপলক্ষে দিনব্যাপী নানাকর্মসূচির মধ্যে ছিল, কালো পতাকা উত্তোলন, সাংবাদিক শিমুলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, কালো ব্যাচ ধারন, শোক র‌্যালি, সংক্ষিপ্ত সমাবেশ।

এ দিন সকালে শাহজাদপুর প্রেসক্লাব চত্বরে জাতীয় ও কালো পতাকা উত্তোলন, নিহতর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও নিহত সাংবাদিক শিমুলের স্মরনে ১ মিনিট নিরবতা পালনের পর শাহজাদপুর প্রেসক্লাব চত্বর থেকে একটি শোক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি বিমল কুমার কুন্ডুর সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রেস ক্লাব শাহজাদপুরের সভাপতি আতাউর রহমান পিন্টু, সাধারণ সম্পদাক মোঃ ওমর ফারুক, শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কাশেম, সাংবাদিক হাসানুজ্জামান তুহিন, শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ আল আমিন হোসেন প্রমূখ। বক্তারা সাংবাদিক শিমুল হত্যা মামলাটির বিচারকার্যের দীর্ঘসূত্রিতা দ্রুত কমিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার জন্য সরকার ও বিচার বিভাগের কাছে জোর দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন। বক্তরা বলেন, সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যাকাণ্ডের ৪ বছর পার হলেও নানা জটিলতা এবং ঘাতকদের নানা কূটকৌশলে বিচার প্রক্রিয়া শেষ হওয়া তো দূরের কথা বিচারকার্যই শুরু হয়নি। সমস্ত প্রতিবন্ধকতা দূর করে অবিলম্বে রাজশাহী দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল আদালতে দ্রুত বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জোড় দাবি জানান তারা। র‌্যালি ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন, সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুলের স্ত্রী নুরুন নাহার, ছেলে আল নোমান নাজ্জাশি সাদিক, মেয়ে তামান্না-ই-ফাতেমা, মামা আব্দুল মজিদ মন্ডল, ভাই আবুল কালাম আজাদ, শাহজাদপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিকুজ্জামান শফি, দেশ রূপান্তরের জেলা প্রতিনিধি মুমীদুজ্জামান জাহান, ইত্তেফাক প্রতিনিধি শফিউল হাসান চৌধুরী লাইফ, সমকাল উপজেলা প্রতিনিধি কোরবান আলী লাভলু, যায়যায় দিন প্রতিনিধি এমএ জাফর লিটন, সাংবাদিক শামসুর রহমান শিশির, দৈনিক আমার সংবাদের উপজেলা প্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম, মাই টিভি প্রতিনিধি জাকারিয়া মাহমুদ, দৈনিক আলোকিত সকালের বিশেষ প্রতিনিধি মিঠুন বসাক, সাংবাদিক মামুন রানা, মাসুদ মোশাররফ, আবুল হাসনাত টিটো, জেলহক হোসাইন, মোঃ আমিনুল ইসলাম, আব্দুল কুদ্দুস, মনিরুল গনি চৌধুরী শুভ্র, ফারুক হাসান কাহার, আরিফ হোসেন, মির্জা হুমায়ুন কবির, নয়ন আলী প্রমুখ ।সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শেষে র‌্যালিটি পুনরায় প্রেসক্লাব চত্বরে এসে শেষ হয়। উল্লেখ্য,২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার পৌর শহরের মনিরামপুরে শাহজাদপুর পৌর মেয়র হালিমুল হক মিরুর বাড়ির সামনে আওয়ামীলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষে সাংবাদিক শিমুল গুলিবিদ্ধ হন। ওইদিন চিকিৎসার জন্য প্রথমে তাকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে অবস্থার অবনতি দেখে দ্রুত বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরদিন ৩ ফেব্রুয়ারী উন্নত চিকিৎসার জন্য শিমুলকে বগুড়া থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে তিনি মারা যান। পরে সাংবাদিক শিমুলের স্ত্রী বাদী হয়ে সাবেক মেয়রকে প্রধান আসামী করে শাহজাদপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে সাবেক মেয়র মিরুসহ ৩৮জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। বর্তমানে সব আসামি জামিনে রয়েছেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ