আজ ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

গাইবান্ধা ৩ আসনের উপ নির্বাচনে চলছে ভোট গ্রহন

নিজস্ব প্রতিবেদক  

 

গত বছর ২৭ ডিসেম্বর চিকিৎসাধীন গাইবান্ধা ৩ আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ ইউনুস আলী সরকারের মৃত্যুর পর আসনটি শূন্য হওয়ায় আজ ২১ মার্চ আসনটিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে উপ নির্বাচন। নির্বাচনী উৎসবে করোনা ভাইরাস রোধে ও জনসচেতনতায় নির্বাচন কমিশনের বিভিন্ন কর্মসূচী পালনের মধ্য দিয়ে গাইবান্ধা ৩ আসনের উপ নির্বাচনে চলছে ভোট গ্রহন। আসনটির দুই উপজেলায় ১৩২ কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে শুরু হয়েছে ভোট গ্রহন চলবে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত। ৪ লাখ ১১ হাজার ৮৫৪ জন নারী পুরুষ ভোটার এ নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ভোটাররা ভোট প্রয়োগে কেন্দ্রে আসতে শুরু করেছেন সকালে ও দুপুরের পর ভোটার উপস্থিতি বেশী দেখা যায়।

এ নির্বাচনে সর্বশেষ আওয়ামীলীগ বিএনপি ও জাতীয়পার্টি, জাসদের ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীরা হলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এ্যাড.উম্মে কুলসুম স্মৃতি (নৌকা),জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মাইনুর রাব্বী চৌধূরী রোমান (লাঙ্গল),বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ডাঃ মইনুল হাসান সাদিক (ধানের শীর্ষ) , কাগজ কলমে প্রার্থীতা থাকলেও জাসাদ মনোনীত প্রার্থী খাদেমুল ইসলাম খুদি (মশাল) নৌকা মার্কায় সমর্থন দিয়ে শেষ মহুর্তে নির্বাচন হতে সরে দাড়িয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের আয়োজনে নির্বাচনে ১৩২ জন প্রিজাইডিং অফিসার,৭৮৬ জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার,১৫৭২ জন পোলিং অফিসারসহ আনসার,গ্রাম পুলিশ,পুলিশ,র‌্যাব বিজিবি ও বিভিন্ন আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও মোবাইল কোট পরিচালনায় সার্বক্ষনিক আসনটির ২০ টি ইউনিয়নে থাকছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্র করোনা ভাইরাস হতে সতর্ক থাকতে ও করনো সংক্রমন রোধ করতে ভোট গ্রহনের সময় কেন্দ্রে হ্যান্ড ওয়াস,সাবান পানি ,টিসু,সহ রয়েছে। জনসচেতনতায় পোস্টার ও লিফলেট বিতরণের এর ব্যবস্থা করেছে নির্বাচন কমিশন । এ পর্যন্ত বেলা ১২ টার পর ১৩২ মধ্যে একটি কেন্দ্রে পাশের দুই পক্ষের মাঝে দ্বন্দ কোলহ হয়। তবে সেখানে পরিবেশ স্বাভাবিক রয়েছে।

পলাশবাড়ী টাউন হলে ভোট কেন্দ্র পরির্দশন শেষে রিটানিং অফিসার মাহাবুর রহমান জানান,করোনা ভাইরাস রোধে প্রতিটি কেন্দ্র পর্যাপ্ত ব্যবস্থা রয়েছে।
এ ভোট কেন্দ্র পরির্দশন শেষে পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম বলেন,নির্বাচনে পুলিশসহ বিভিন্ন আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্য সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করছে। নির্বাচনের পরর্বতী সময় পর্যন্ত তারা দায়িত্ব পালন করবে । আশা করছি শান্তিপূর্নভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ।

টাউন হলের ভোট কেন্দ্র পরির্দশন শেষে জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন বলেন,নির্বাচন কমিশনের আয়োজনে উপ নির্বাচনে এ পর্যন্ত একটি অভিযোগ কোথাও পাওয়া যায়নি। মোবাইল টিম পৃথক পৃথকভাবে কাজ করছে। আশা করি শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

পলাশবাড়ী টাউন হলে ভোট প্রদান শেষে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ও বাংলাদেশ কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড উম্মে কুলসুম স্মৃতি জানান, ভোট কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ও উৎসব মূখর পরিবেশে ভোট দিলাম, জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদি। অন্যান্য প্রার্থীরা নৌকার জয় নিশ্চিত জেনে বিভিন্ন প্রবাকান্ডা চালানোর পায়তারা করছে। এ ক্ষেত্রে তিনি নির্বাচন কমিশনসহ সংশ্লিষ্টদের আরো সচেতন থাকার অনুরোধ জানান।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ