আজ ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

সরাইলে দুই গ্রামের ৩ ঘন্টা ব্যাপী রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ সন্ধায় নিষ্পত্তি

হাসনাত কাইয়ূম,সরাইল প্রতিনিধি

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এ সংঘর্ষ চলে উপজেলার অরুয়াইল ইউপির প্রত্যন্ত অঞ্চল কাকরিয়া ও রাণীদিয়া এ দুই গ্রামের লোকদের মাঝে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কিছুদিন আগে অরুয়াইল থেকে কাকরিয়া ও রাজাপুর গ্রামের কাঁচা রাস্তায় সিএনজি অটোরিকশা চলাচল শুরু হয়। এতে বাধা দেয় রাণীদিয়া গ্রামের কিছু লোক। তারা এ রাস্তা দিয়ে মোটরসাইকেল যোগে যাত্রী আনা-নেওয়া করতে চায়। এ নিয়ে কাকরিয়া গ্রামের মেম্বার সুন্দর আলী’র (৬২) সঙ্গে তাদের বিরোধ সৃষ্টি হয়। গত ৯ মার্চ ইউপি সদস্যকে তারা মারধর করে। আহত ইউপি সদস্যকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে পরদিন ইউপি সদস্য সুন্দর আলীকে প্রধান আসামি করে মারধরের ঘটনায় সরাইল থানায় মামলা করে রাণীদিয়া গ্রামের লোকজন। অপরদিকে ইউপি সদস্যের পক্ষ থেকে রাণীদিয়া গ্রামের কিছু লোকের বিরুদ্ধে আদালতে চাঁদা দাবির মামলা দেওয়া হয়। পরে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে ফিরে আদালত থেকে জামিন নেন ইউপি সদস্য সুন্দর আলী।

এসব ঘটনায় এ দুই গ্রামের লোকদের মাঝে উত্তেজনা চলছিল। কিন্তু এ চরম উত্তেজনার মধ্যেও বিষয়টি আমলে নেননি স্থানীয় দায়িত্বশীল জনপ্রতিনিধিসহ অন্যরা। এরই জের ধরে দুই গ্রামের মানুষ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে সরাইল থানার ওসি সাহাদাত হোসেন টিটো’র নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ওসি জানিয়েছেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। দুই গ্রামের বিরোধ নিষ্পত্তির চেষ্টা চলছে।

এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার ( সরাইল সার্কেল) মোঃ মাসুদুর রহমান ও সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন টিঠোর নেতৃত্তে বিকাল ৫ টায় অরুয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে দুই গ্রামের সাহেব সরদার গনকে নিয়ে বিষয়টি নিস্পত্তি করা হয় এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ার প্রদান করেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ