আজ ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুন, ২০২৪ ইং

কুয়াকাটা পৌর উপ-নির্বাচনে রেহেনা বেগম নির্বাচিত

জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, কুয়াকাটা প্রতিনিধি:-

বাংলাদেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র পটুয়াখালীর কুয়াকাটা পৌরসভার ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদের উপনির্বাচনে জবা ফুল মার্কা নিয়ে ৭০১ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন রেহেনা বেগম।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী অটোরিক্সা মার্কা নিয়ে হাফিজা বেগম পেয়েছেন ৫৪০ ভোট। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার আবদুর রশিদ।

গত ২৯ জুন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর হোসনেয়ারা বেগম করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার পর আসনটি শূন্য হয়। প্রায় চার মাস আসন শূন্য ছিল।

বৃহস্পতিবার ( ৮ অক্টোবর) সকাল ৮ টায় শুরু হয় কুয়াকাটা পৌরসভার সংরক্ষিত মহিলা আসনের ভোট গ্রহন। বিরতিহীনভাবে কোন অপৃতীকর ঘটনা ছাড়া একটানা চলে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত। এ পৌরসভার ৩ টি ভোট কেন্দ্রে ২ হাজার ৬ শ‘ ৯৬ জন ভোটারের মধ্যে ১ হাজার ৮শ‘ ০৯ জন ভোটার তাদের ভোটধিকার প্রয়োগ করেন।

সকালের দিকে ভোটারদের তেমন দেখা না মিললেও, দুপুর ১:৩০এরপর থেকে, ভোটারদের আনাগোনা দেখা গেছে। ধারণা করা যাচ্ছে সকালের তুলনায় বিকেলে ব্যালটবক্সে ভোট বেশি পড়েছে।

এসময় পুরুষ ভোটার মোঃ শহীদ বলেন, সুন্দর এবং সুষ্ঠভাবে আমরা ভোট দিয়ে যোগ্য প্রার্থী বাছাই করেছি, আমরা আশা করছি আমাদের নির্বাচিত প্রার্থী দিয়ে আমাদের সমাজ উন্নয়ন হবে এবং আমাদের পাশে সব সময় পাবো।

মহিলা ভোটার আকলিমা বেগম আনন্দময় কথার ছলে বলেন, মনের মত যোগ্য প্রার্থী বাছাই করেছি রেহেনা বেগমকে, সবসময় আমাদের পাশে ছিল এবং এখনো থাকবে, তিনি আরো বলেন জবা ফুল যেমন পবিত্র তেমনি পবিত্রভাবে সৎ সাহসের সাথে আমাদের অসহায় এবং গরীব দুঃখী মানুষের পাশে সব সময় থাকবে এই প্রত্যাশা নিয়ে আমরা নির্বাচিত করেছি জবা ফুল মার্কা কে।

ফোনের মধ্যে বিজয়ী প্রার্থী রেহেনা বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেছেন, আমি এই মুহূর্তে ব্যস্ত রয়েছি ব্যস্ততার ফাঁকে আপনাদের এটুকু জানিয়ে রাখতে চাই।

যে আমাকে সবাই যে ভাবে বিশ্বাসের সাথে ভোট দিয়ে আমাকে নির্বাচিত করেছে আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ, আমি তাদের এ বিশ্বাস কখনো ভাঙবো না। কুয়াকাটাকে সাজিয়ে রাখা এখন এটা আমার দায়িত্ব, আমি সকলের দোয়া ভালোবাসা নিয়ে সকল সেবা নিজেকে উৎসর্গ করবো।

কুয়াকাটা পৌর বর্তমান প্যানেল মেয়র মোঃ মনির শরিফ বলেন, আমরা নির্বাচনের পরে আমাদের সুন্দর একটি পরিবার তৈরি হয়েছিল, জনগণের ভোটে ৯ জন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ৩জন মহিলা কাউন্সিলর ও আমাদের সম্মানিত মেয়র মহোদয় কে নিয়ে কুয়াকাটা পৌরসভার পরিচালনার শপথ গ্রহণ করি।

শপথ গ্রহণের কিছু দিনের ভিতারে আমাদের সহকর্মীকে আমারা চিরতরে হারিয়ে ফেলি, আমাদের সবার উপরে শোকের ছায়া নেমে আসে,আমরা আশা করবো যিনি আমাদের জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে, আমাদের হোসনেয়ারা বেগম কে স্মরণ করে কুয়াকাটার উন্নয়নের স্বার্থে কাজ করবে।

কলাপাড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রির্টানিং অফিসার আবদুর রশিদ জানান, অবাধ, সুষ্ঠ ও সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে, নির্বাচনের সময় সাধারণ ভোটাররা আমাদের অনেক সহযোগিতা করেছে তাদের সহযোগিতায় আমরা সুন্দর একটি নির্বাচন তুলে আনতে পেরেছি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ