আজ ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে জুন, ২০২৪ ইং

মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের মাঝে স্বপ্নপুরনের ইফতার সামগ্রী বিতরন

ইমাম হোসেন :

ঝালকাঠিতে মানবসেবায় নিয়োজিত জেলার অন্যতম সেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ” স্বপ্নপূরণ সমাজকল্যাণ সংস্থা ” (এসএসএস) উদ্যোগে ঝালকাঠি পৌর শহরের ২০টি মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে সংগঠনের পক্ষ থেকে আজ ২০টি মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের মাঝে ১ মাসের ইফতার সামগ্রী বিতরন করে।

বাংলাদেশে বৈশ্বিক মহামারি কোভিড ১৯ এর প্রভাব শুরু হবার পর থেকে এখন পর্যন্ত ঝালকাঠিতে মানবসেবায় নিয়োজিত জেলার অন্যতম সামাজিক সংগঠন ” স্বপ্নপূরণ সমাজকল্যাণ সংস্থা ” (এসএসএস) এর পক্ষ থেকে বিনামূল্যে মাস্ক, জনসচেতনতা মূলক লিফলেট ও শহরের বিভিন্ন মসজিদের ওযু খানায় হাত ধোয়ার জন্য সাবান বিতরণ করে আসছে। এছাড়াও প্রথম ধাপে লকডাউনে পিছিয়ে পরা মধ্যবিত্ত ৫২৫পরিবারের মধ্যে ২মাস ব্যাপী “৫টাকার কেনাকাটা” শিরোনামে খাদ্য সহায়তা করে। করোনার প্রথম ধাপের কার্যক্রম ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে কোভিড ১৯ তথা করোনা ভাইরাই এর দ্বিতীয়ধাপেও করোনা প্রতিরোধে মাসব্যাপী ক্যাম্পেইনের মধ্যে শহরের বিভিন্ন জনসমাগম স্থান বাজার, বিভিন্ন ষ্ট্যান্ড ও বিভিন্ন মসজিদে করোনা প্রতিরোধে করনীয় শীর্ষক পথ সভা, করোনা প্রতিরোধে বিনা মূল্যে মাস্ক বিতরন, বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্নয় ও “৫টাকার কেনাকাটা” কার্যক্রম চলমান রেখেছেন সংগঠনটি।

এছাড়াও ’ আলোকিত যুব সমাজ, আলোকিত জাতি ‘ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে স্থানীয় যুবকদের আর্তমানবতার সেবায় এগিয়ে নিয়ে অসার আহবান নিয়ে পথ চলা শুরু করে ঝালকাঠির অন্যতম সেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন “ স্বপ্নপূরণ সমাজকল্যাণ সংস্থা “ । আর তারই ধারাবাহিকতায় দেশে চলমান লকডাউনে আয়হীন দরিদ্র মানুষের মাঝে ৫ টাকায় খাদ্য সামগ্রী বিতরন সহ পবিএ মাহে রমজান উপলক্ষে ঝালকাঠি পৌর শহরের ২০টি মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের মাঝে ১ মাসের ইফতার সামগ্রী বিতরন করেন।

এ বিষয় স্বপ্নপুরন সমাজকল্যাণ সংস্থা ‘র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এইচ এম রিয়াজ খান অশ্রুর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, ঝালকাঠিতে স্বপ্নপুরন সমাজকল্যাণ সংস্থা একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন । আর এ সংগঠনের মাধ্যমে কোভিড-১৯ তথা করোনা ভাইরাস আক্রমনের শুরু থেকেই ঝালকাঠিতে সম্মোক যোদ্ধা হিসেবে কাজ করায় ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। শুধু তাই নয় বর্তমান সময়ে বৈশ্বিক মহামারি কোভিড ১৯ এর শুরু থেকেই স্থানীয় যুবসমাজকে রক্তদানে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্নয় পূর্বক অসুস্থ রোগী রক্ত দিয়ে সহায়তা করে আসছে। আমরা ঝালকাঠির বাসীর অনেক সহযোগীতা ও ভালবাসা পেয়েছি। আর,আমরা তাদের এই ভালবাসায় নতুন উদ্দোমে কাজ করার অনুপ্রেরণা পাই, আমরা তাদের ভালবাসা নিয়ে এভাবেই মানবতার সেবায় কাজ করে যেতে চাই।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ