আজ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

চাঁদপুরে করোনা টেস্টের ল্যাব স্থাপনের প্রক্রিয়া কার্যক্রম শুরু

 

 

ইব্রাহীম খলীল সবুজ – চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

 

চাঁদপুরে যখন করোনা আক্রান্ত দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে ঠিক তখনি করোনা টেস্টের জন্য চাঁদপুর শহরে আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপন হতে যাচ্ছে।
ইতিধ্যে ল্যাব স্থাপনের প্রক্রিয়ার কাজ শুরু হয়েছে।
২৩ই জুন বুধবার বিশেষজ্ঞ টিম চাঁদপুর এসে ল্যাব স্থাপনের সম্ভাব্য স্থান নির্ধারণ করেছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য আজ জানা যায়।

সূত্রে বলা হয়, দ্রুততম সময়ে ল্যাবটি স্থাপন ও কার্যক্রম শুরু প্রচেষ্টা চলছে। আশা করা হচ্ছে, আগামী জুলাইয়ের মধ্যে চাঁদপুরে করোনা টেস্ট কার্যক্রম শুর হবে। প্রাথমিকভাবে এই ল্যাবে প্রতিদিন ২০০-৩০০ নমুনা টেস্ট করা যাবে।

সূত্রে আরো জানা যায়, ভাষাবিদ এম এ ওয়াদুদ মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় চাঁদপুর মেডিকেল কলেজে ল্যাবটি স্থাপন করা হবে। এই ল্যাব স্থাপনের মূল উদ্যোক্তা চাঁদপুর সদর আসনের এমপি ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। মূলত তার আর্থিক অনুদানে ল্যাব স্থাপনের প্রাথমিক কাজ শুরু হচ্ছে।

বুধবার সকালে চাঁদপুরে সিভাসোর করোনা ল্যাব বিশেষজ্ঞ দল ল্যাব স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাই ও স্থান নির্বাচনে এসেছে। তারা চাঁদপুর সদর হাসপাতালের পূর্বের আইসোলেশন ইউনিটসহ শহরের আরো কিছু স্থাপনা পরিদর্শন করেছে। এর মধ্যে একটি স্থাপনা তাদের কাছে উপযুক্ত বলে মনে হয়েছে।

পরিদর্শক টিমে ছিলেন সিভাসোর গবেষক ও প্যাথলজিস্ট ডা. মোঃ সিরাজুল ইসলাম, মাইক্রোবায়োলজিস্ট ডা. ত্রিদিব দাস।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন শাখাওয়াত হোসেন, মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসার ডা. জামান সালেহ উদ্দিন, বিএমএ’র সভাপতি ডা. নুরুল হুদা, সেক্রেটারি মাহমুদুন নবী মাসুম, সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. মাহবুবুর রহমান, আরএমও ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, প্রেসক্লাব সেক্রেটারি এএইচ এম আহসান উল্লাহ, শিক্ষামন্ত্রীর স্থানীয় প্রতিনিধি অ্যাড. সাইফুদ্দিন বাবু।

পরিদর্শক দলের কর্মকর্তা সিভাসোর গবেষক ও প্যাথলজিস্ট ডা. মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, চাঁদপুরে করোনা টেস্টের ল্যাব স্থাপনে কয়েকটি জায়গা পরিদর্শন করেছি আমরা। এর মধ্যে একটি জায়গা পছন্দ হয়েছে। ল্যাবের অবকাঠামো চাহিদা, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন, টেস্টিং কিট, সুরক্ষা সামগ্রী পেলে আগামী জুলাইয়ের ২০ তারিখের মধ্যে ল্যাবটি চালু করা যাবে। প্রথম দিকে প্রতিদিন ২০০ টেস্ট করতে পারবো। পরে ৩০০ পর্যন্ত তা বাড়ানো যাবে।

সূত্রে আরো জানা যায়, প্রাথমিকভাবে টেস্টিং ল্যাবে ৮ জনের বিশেষজ্ঞ টিম কাজ করবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ