আজ ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে এপ্রিল, ২০২১ ইং

হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবীতে মানববন্ধন

 

মোঃফরিদুল ইসলাম : ভোলা থেকে 

 

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলাধীন জমিজমার বিরোধের জের ধরে তরুণকে খুন ১নং গঙ্গাপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে জমির সীমানা নিয়ে কথা কাটা-কাটিকে কেন্দ্র করে শামিম (১৬) নামে এক হাফেজীয়া মাদ্রাসার ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে মর্মে অভিযোগ উঠেছে। গত ১২-১২-১৯ ইং তারিখে উক্ত ওয়ার্ডের রতনের ছেলে মিলন (৪২), সৈয়দ এর ছেলে তাহের (৩৫) এর সাথে জমির সীমানা নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে, মহিজল সর্দারের নির্দেশে, আলমগীর ফরাজীর ছেলে মাদ্রাসায় পড়ুয়া শামীমকে এলোপাতাড়ি মারধর করে, মারাত্মক জখম করে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে যায়।

মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। গত ২৭-১২-১৯ ইং তারিখে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শামিমের মৃত্যু হয়। নিহত শামিমের বাবা আলমগির ফরাজি জানান, আমার ছেলেকে আমার সামনে মহিজল সর্দারের নির্দেশে মিলন ও আবুতাহের পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। স্থানীয় লোকজনসহ মুমূর্ষু অবস্থায় শামিমকে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করি, তার অবস্থা আসঙ্কাজনক হলে বরিশাল হাসপাতালে নেই, সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় শামিমের মৃত্যু হয়।

শামিম হত্যার বিচার চেয়ে গত ১০/০১/২০২০ইং বিকাল ৫ ঘটিকায় এলাকাবাসী একটি মানববন্ধন করে। এসময় তারা বলেন, শামিমকে মিলন (৩৫) পিতা রওন আবু তাহের ( ৩০) পিতা মৃত সৈয়দ আহম্মেদ রতন (৫৫) পিতা- মৃত তুর্জন আলী মোসাঃ লাইলী বেগম (৩০) স্বামী মোঃ মিলন মিলনের নেতৃত্ব ওরা শামিমকে খুন করে। এ বিষয়ে বোরহানউদ্দিন থানায় ৪ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়, যার নাম্বার- জি আর ৪১৬/১৯ পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি। শামীম হত্যা ও কোন আসামি গ্রেফতার না হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বোরহানউদ্দিন থানার ওসি বলেন আসামী গ্রেপ্তার করার অভিযান চলছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ