আজ ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

জ্যামিতিক সূত্র আবিষ্কার করলেন দৈনিক ‌”আগামীর সংবাদ”র রাজশাহী ব্যুরোপ্রধান জিয়াউল কবির

 

ইসহাক, সালাম,
রাজশাহী :

২(n-২)সূত্রটিতে ধ্রুবকে n এর স্থলে যতটি কোনের মান প্রয়োজন সে অংক বসিয়ে ক্যালকুলেশন করলেই সমকোণে মান নির্ণয় হবে। এটাই বহুভূজের কোণ পরিমাপের সূত্র।

৩ কোণের সমষ্টি ২ সমকোণ, ৪ কোণের সমষ্টি ৪ সমকোণকে তত্ব হিসেবে ধরে নিলে গবেষনায় পাওয়া যাবে ৫ কোণের সমষ্টি ৬ সমকোণ এবং ৬ কোণের সমষ্টি ৮ সমকোণ। এখানে দেখা গেছে ফলাফল যথাক্রমে ২,৪,৬,৮ অর্থাৎ ২,২ করে বেশি আছে। অতএব n এর পর n+১, n-১, n+২, n-২, n+৩, n-৩ ইত্যাদি ধ্রুবক n কে অগ্রসর হলে শেষ পর্যন্ত n(n-২) স্থলে সূত্র প্রকাশ পায়। n এর স্থলে যদি ৩ বসিয়ে উহার মান ২ সমকোণ অথবা n এর স্থলে ৪ সমকোণ বসিয়ে উহার মান ৪ সমকোণ পাওয়া যায় তবে বহুভুজের ক্ষেত্রে একটি মান চলে আসবে যা বহুভুজের কোণ ২(n-2) এর অবস্থান পরিমাপের সূত্র বলে বিবেচিত ও প্রমাণিত হয়েছে। n এর মান ৩ বসিয়ে সরল স্থানে মান পাওয়া যাচ্ছে। যাকে ২ সমকোণ বলা হয় যা ২(n-২)=২(৩-২)=২×১=২ সমকোণ। n এর স্থলে এভাবে নির্ণয়কোণ বসিয়ে ক্যালকুলেশনই হবে নির্ণয়কোনের সমকোণীয় পরিমাণ যাহা যাহা ২(n-২) সূত্র। উক্ত সূত্রটির সত্যতা যাচাই করেন অধ্যক্ষ মো: আবুল কালাম আজাদ স্যার।তিনি এখন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত গনিত বিভাগের চেয়ারম্যান। অনুসন্ধানী বিজ্ঞান সংগঠনের বিজ্ঞানী ও গনিত শিক্ষকগনকে আবিস্কৃত সূত্রটি গানিতিক ও গ্রাফের সাহায্যে বুঝতে সমার্থন হন যে, আবিস্কারের সূত্রটি সঠিক।
তার সোনালীময় বহুস্মৃতি উজ্জ্বলিত বটে।বহুভুজের n(n-২) সূত্রটির আবিস্কারক হলেন জিয়াউল কবীর স্বপন
তার পিতার নাম: একেএম সিকান্দার মাতার নাম: ফিরোজা ইয়াকুব। তার পিতা মুক্তিযোদ্ধা বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের সমনেত্রীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা ৫ ভাই’র একজন সেলিম বিমান বাহিনীর অফিসার, শহীদ বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসার, হুমায়ূন ইসলামীক ফাউন্ডেশনের অফিসার,আবিস্কারক জিয়াউল কবীর স্বপন সাংবাদিক ও জনসংযোগকারী অফিসার, ফরহাদ কাশিয়াডাংগা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, রাজপাড়া থানাস্থ, রাজশাহী
২(n-২) গানিতিক ও জ্যামিতিক সূত্র আবিষ্কারক জিয়াউল কবীর স্বপন সত্য,ন্যায়, সাম্য ইনসাফ আদল ইত্যাদি ক্ষেত্রে বা অধিকার মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় আপোষহীন হিসেবে দেশের জাতীয় ও স্থানীয় গন মাধ্যমে দীর্ঘ ২২ বছর যাবৎ সাংবাদিকতা করে চলেছেন । দৈনিক বাংলা বাজার, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন, সংবাদ সংস্থা ইউএনবি,দৈনিক বাংলাদেশর সাপ্তাহিক মুসলিম জাহান, বাংলা বাজার, মহানগর বার্তা, মানব বার্তার জেলা প্রতিনিধি হিসেবে সাংবাদিকতা করে চলেছেন। এছাড়া রাজশাহীর দৈনিক উপচার,দৈনিক প্রথম প্রভাত,দৈনিক সানশাইন, দৈনিক লালগোলাপ,সপ্তাহিক উওর জনপদ,সপ্তাহিক ধরনী, গণমাধ্যমেও বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিকতা করে চলেছেন।বর্তমানে বাংলাদেশ ট্রিবিউনের রাজশাহী বিভাগীয় ও মানববার্তা ও মানবটিভির জেলা প্রতিনিধি।

তিনি রাজশাহীর দামকুড়া থানার সোনাইকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক , রাজপাড়া কোর্ট একাডেমিতে নিম্ন মাধ্যমিক এবং পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ থেকে প্রায় আটশত নাম্বার প্রাপ্ত হয়ে মাধ্যমিক পাশ করেন ১৯৯৫ সালে। রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। এরপর রাজশাহী নিউ গভ: ডিগ্রি কলেজ থেকে স্নাতক ও রাজশাহী টিটি কলেজ হতে বি এড ও রাজশাহী কলেজ হতে রাষ্টবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর মাস্টার্স ডিগ্রি লাভ করেন।
২০০২-২০০৫ সালে আইন মনিটরিং অফিসার হিসেবে সামাজিক উন্নয়ন মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মী হিসেবে ব্র্যাকে কাজ করেন। এ সময় সিসিডি ও কেয়ার বাংলাদেশের রিপোর্ট রাইটিং কম্পোজিশন -২০০৩ সালে সফলতা সনদ লাভ করেন। বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি প্রশিক্ষণীয় ২০০৫ সালে সাফল্য সনদ প্রাপ্ত হন। ২০০৭ সালে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিশু ও শিক্ষকতা সনদ লাভ করেন। ২০১৩ সালে বাংলাদেশ এনটিআর সিএ শিক্ষক নিবন্ধন সনদ ডিগ্রি অর্জন করেন। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড থেকে ২০১০ সালে আমিনশীপ সনদ অর্জন করেন।

রাজশাহী দামকুড়া থানার খোলাখোনা আলিম মাদ্রাসায় ২০০১-২০০৬ সাল ও রাজশাহীর কাশিয়াডাংগা থানার কাশিয়াডাংগা উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০০৭-২০০৮ সাল পর্যন্ত গনিত বিষয়ে শিক্ষকতা করেন।
উন্নত সমজ দেখা ও গড়ার প্রত্যয়ে তিনি রাজশাহীর দৈনিক সোনালী সংবাদের কাজী নাজমুল ইসলামকে সভাপতি ও দৈনিক নতুন প্রভাতের সোহেল মাহবুরকে সা: সম্পাদক করে তিনি ২০০৫ সালে রাজশাহীর পবা প্রেস ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন। এখন তিনি এ প্রেস ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক ও রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী সদস্য । ১৯৯৮ সাল হতে সকল নির্বাচনে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার রাজশাহী জেলা সাবেক পাঠাগার সম্পাদক তিনি গনিত শিক্ষাকেন্দ্র, স্বপনসুমি লাইব্রেরী, জমি জরিপ সেন্টারের সাবেক পরিচালক। দি আইডিয়াল ওয়েল ফেয়ার সোসাইটি, গ্রাম সরকার ফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোনাইকান্দি আইডিয়াল ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও নকল প্রতিরোধ প্রতিরোধ আন্দোলনের পবা শাখার আহবায়ক ও অনুসন্ধানী বিজ্ঞান সংগঠনের আলোচক ছিলেন।

স্টুডেন্ট এডুকেশন ট্রাস্ট এর সাবেক পরিচালক ও কাশিয়াডাংগা বাজার রাজশাহীর বর্তমান সহ: সাধারণ সম্পাদক ও নগরীর লক্ষীপুর মোড়ে একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠায় জন সংযোগকারী। বাংলাদেশ সরকারের 5 policy (NIS,GRS,RTAPA,CE প্রকল্পের বাংলাদেশ তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ National Institute of Mass Communication Dhaka. ব্রিটিশ কাউন্সিলের যৌথায়নে তিনি ২০২০ সালে সাংবাদিক হিসেবে সাফল্য লাভ করায় সরকারী ভাবে সনদ প্রাপ্ত হন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ