আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুন, ২০২১ ইং

বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

 

আতিকুল ইসলাম

শাকিল (১৮) নামে এক প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকা অবস্থান করছে। ঘটনার তিন দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও কোন সমাধান হয়নি। তবে ছেলের বাবা ও মা মেয়েটিকে বাড়ি থেকে তাড়াতে বিভিন্নভাবে চেষ্টা তদবির করছেন বলে জানা গেছে। এদিকে বিয়েই একমাত্র সমাধান বলে এলাকাবাসীর দাবি।

আদিতমারী উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের তালুক পলাশী এলাকার রেজাউল করিম আলম হোসেনের বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। তাহার ছেলে মোঃ সাকিল ও পাশের একই এলাকার লাবলু হোসেনের মেয়ে মোছাঃ লামইয়া খাতুন দীর্ঘদিন হতে প্রেম সম্পর্ক চালিয়ে আসতেছে।

অবস্থানরত মেয়েটি জানান, শাকিলের সাথে তার ১ বছরের গভীর প্রেমের সম্পর্ক। সে সবসময়ই মেয়েটিকে ফোন দিয়ে তার বাসায় আসতে বলে শাকিল।মেয়েটির বাবা ও সৎ মা কাজের সন্ধ্যানে থাকার সুযোগে তাদের মাঝে চলে অবাধে মেলামেশা ও লুকিয়ে দৈহিক সম্পর্ক। কিছুদিন আগে বিষয়টি পরিবারের লোকজন জানতে পারলে মেয়েটিকে অনেক গালমন্দ করে। একদিকে পরিবারের অপমান আর একদিকে প্রেমিকের কল করে। পরে মেয়েটি ১৯ মে মঙ্গলবার সকালে শাকিল এর বারিতে গিয়ে উঠে। মেয়েটি বাড়িতে আসায় পরিবারের চাপে বাড়ি থেকে বের হয়ে পালিয়ে যায় শাকিল। এবং শাকিলের পরিবারের লোকজন মেয়েটিকে বেধড়ক মারধোর করে বাড়ি থেকে বের করে দিতে চায় বলে মেয়েটি জানান।

এবিষয়ে কথা বলার জন্য শাকিলকে মোবাইল ফোনে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

শাকিলের বাবা আলম হোসেন বলেন, আমি এবিষয়ে কিছুই জানিনা। মেয়েটি হঠাৎ করে আজ তার ছেলেকে বিয়ে করার জন্য বাড়িতে এসে উঠে। তবে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা আগে থেকেই বিষয়টি জানতেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার মোঃজামিনুর রহমান বলেন আমি ঘটনাস্থলে যাই নি তবে শুনেছি, পলাশী ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছাঃ রশিদা খাতুন বিষয়টি তদন্ত করেন। আদিতমারী থানা ওসি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন আমরা যতদ্রুত সম্ভব ঘটনা স্থলে যাবো এবং মেয়েদের পরিবারের পক্ষ হতে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তবে এলাকাবাসী জানায় এ বিষয়ে সমাধানের চেস্টা চলছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ