আজ ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ ইং

মিয়ানমারের সংঘাতের মধ্যেও থেমে নেই মাদক আশা, ১লক্ষ ৬০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার

মোঃ আলমগীর, টেকনাফ :

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘাতের মধ্যেও চোরাই পথে বাংলাদেশে আসছে ইয়াবা।এই অবস্থায়ও বসে নেই মাদক চোরাকারবারী চক্র।
কক্সবাজারের টেকনাফ সাবরাং সীমান্তে পৃথক অভিযান চালিয়ে ১লক্ষ ৬০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ৩ বোতল বিদেশী মদ উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।তবে এর সঙ্গে জড়িত কোন চোরাকারবারীকে আটক করা সম্ভব হয়নি।
টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ মহিউদ্দীন আহমেদ গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান,বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ নাজিরপাড়া বিওপি’র দায়িত্বপূর্ণ বিআরএম-৫ থেকে আনুমানিক ৮০০গজ উত্তর দিকে আলুগোলা এলাকা দিয়ে মাদকের একটি চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসতে পারে।এমন তথ্যে নাজিরপাড়া বিওপি’র একটি চোরাচালান প্রতিরোধ টহলদল ঐ এলাকায় গিয়ে কয়েকটি উপদলে বিভক্ত হয়ে বেড়িবাঁধের আঁড় নিয়ে কৌশলগত অবস্থান নেয়।কিছুক্ষণ পর টহলদল একজন ব্যক্তিকে একটি ব্যাগ হাতে নিয়ে নাফনদী পার হয়ে সীমান্তের শূণ্য লাইন অতিক্রম করে আনুমানিক ১.২ কিলোমিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বেড়ীবাঁধ অতিক্রম করে আলুগোলা এলাকার দিকে আসতে দেখে।উক্ত ব্যক্তির গতিবিধি সন্দেহজনক পরিলক্ষিত হওয়ায় পূর্ব থেকেই কৌশলগত অবস্থানে থাকা টহলদল তাকে চ্যালেঞ্জ করলে উক্ত ব্যক্তি দূর থেকে বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি অনুধাবন করা মাত্রই তার হাতে থাকা ব্যাগটি ফেলে দিয়ে দ্রুত দৌড়ে পার্শ্ববর্তী গ্রামের দিকে পালিয়ে যায়।পরবর্তীতে টহলদল চোরাকারবারীর ফেলে যাওয়া একটি প্লাষ্টিকের ব্যাগের ভিতর থেকে ৬০হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৩বোতল বিদেশী মদ জব্দ করতে সক্ষম হয়। এছাড়া অপরদিকে মঙ্গলবার ভোররাতে টেকনাফ ২বিজিবির ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ সাবরাং বিওপি’র দায়িত্বপূর্ণ বিআরএম-৪ থেকে আনুমানিক ১কিলোমিটার উত্তর দিকে আশেকানিয়া নামক এলাকা দিয়ে ইয়াবার একটি চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পাচার হতে পারে।এমন তথ্যে সাবরাং বিওপি’র একটি চোরাচালান প্রতিরোধ টহলদল ঐ এলাকায় গিয়ে বেড়িবাঁধের আঁড় নিয়ে কৌশলগত অবস্থান নেয়।কিছুক্ষণ পর পূর্ব থেকেই কৌশলগত অবস্থানে থাকা বিজিবি টহলদল সীমান্তের শূন্য লাইন থেকে আনুমানিক ১.১কিলোমিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে দুইজন ব্যক্তিকে নাফনদী পার হয়ে একটি বস্তা হাতে নিয়ে আশেকানিয়া এলাকার দিকে আসতে দেখে এবং তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক পরিলক্ষিত হওয়ায় টহলদল তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করে।তারা দূর থেকে বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের হাতে থাকা বস্তাটি ফেলে দিয়ে দ্রুত দৌঁড়ে পার্শ্ববর্তী গ্রামের দিকে পালিয়ে যায়।টহলদল উল্লেখিত স্থানে পৌঁছে ১টি প্লাষ্টিকের বস্তার ভিতর থেকে ১ লক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট (মালিকবিহীন অবস্থায়) উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।এসময় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।
তিনি আরও জানান,চোরাকারবারীকে সনাক্ত করার জন্য অত্র ব্যাটালিয়নের গোয়েন্দা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ