আজ ২৩শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই মে, ২০২১ ইং

হাঁচি কাশি ছাড়াও তৃতীয় আর একটি মাধ্যমে করোনা ভাইরাস ছড়ায়

 

মতিউর রহমানঃ পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের তৃতীয় আর একটি পথ আবিস্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা। মাইক্রোড্রপলেটস এর মাধ্যমে সবচেয়ে বেশি এ সংক্রমণ হচ্ছে বলে দাবী করেছেন একদল জাপানি গবেষক। অন্য দিকে ভয়ংকর এ ভাইরাসটি কিভাবে একজন সুস্থ মানুষের ফুসফুস নষ্ট করে দিতে পারে তার একটি ত্রিমাত্রিক ভিডিও প্রকাশ করছে জর্জওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি হাসপাতাল।

এতদিন পর্যন্ত সবাই জানতো সাধারণত দুটি পদ্ধতিতে হয় (কোভিড- ১৯) সংক্রমণ। আার তা হলো হাচি কাশি এবং আক্রান্ত ব্যক্তির স্পর্শ করার যায়গা।তবে এবার তৃতীয় আর একটি পথের তথ্য দিল জাপানের জাতীয় সম্প্রচার সংস্থা।যে পথের নাম মাইক্রোড্রপলেস বা ক্ষুদ্র ফোঁটা। নোভেল করোনা সংক্রমণ নিয়ে এনএএইচ কে সম্প্রতি প্রকাশ করেছে নতুন একটি তথ্য। যাতে বলা হয় লেজারড্রীম এবং উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ক্যামেরার সাহায্যে একজন মানুষের হাঁচি পর্যবেক্ষণ করেছেন বিজ্ঞানীরা আর হাঁচির সাহায্যে বাতাসে মিশে যাচ্ছে অগনিত ক্ষুদ্র মাইক্রোড্রপলেস।যেগুলো বাতাসে থেকে যাচ্ছে ঘন্টার পর ঘন্টা। এর ব্যাখ্যা দিলেন জাপানের সংক্রমক রোগ বিষয়ক সংস্থার সভাপতি, কাজুহিরো টাটোদা- আর তিনি জানালেন ভীতিকর তথ্য।

এটা দেখে মনে হচ্ছে মানুষের কথোপকথনের সময়-ই ছড়িয়ে পরেছে সংক্রমণ। এমনকি একটা নির্দিষ্ট পরিমান দূরে থাকলেও ঘটেছে এ ঘটনা সুধু সাধারন এ হাঁচি কাসির ফোটা থেকে এমনটা ঘটছে’না অতি ক্ষুদ্র কনা থেকে আসছে এ সংক্রমণ।এখানেই শেষ নয় যুক্তরাষ্ট্রের জর্জওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি হাসপাতাল প্রকাশ করেছে ত্রিমাত্রিক মেডিকেল চিত্র। সেখানে দেখা যাচ্ছে করোনা সংক্রমণ হলে কি দ্রুততম উপায়ে-ই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে একটি সুস্থ মানব দেহের ফুসফুসির কার্যক্রম। যেখান থেকে বাঁচতে পারেছেনা কম বয়সী রোগীরা ও অবস্থা বেশি খারাপ হলেই প্রয়োজন পরে ভেনটিলেশনের আর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকলেই নিশ্চিত মৃত্যু।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ