আজ ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং

চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ, সংখ্যালঘু পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলাধীন কুল্লা ইউনিয়নে চাঁদার দাবিকৃত টাকা দিতে অপরাগতা করায় এক সংখ্যলঘু পরিবারের প্রতি সন্ত্রাসী হামলা চালায় মাদকাসক্ত যুবকরা।

এ’বিষয়ে ভুক্তভোগী গৌর কির্তন মালো বাদী হয়ে ধামরাই থানায় বৃহস্পতিবার একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযুক্তরা হলেন ধামরাই উপজেলার কুল্লা ইউনিয়নের বড় কুশিয়ারা গ্রামের আজগর আলীর ছেলে খোরশেদ আলী (৫০) ও লাল মিয়ার ছেলে শাকিল (২৫)।

সংখ্যালঘু ও ভুক্তভোগী গৌর কির্তন মালো বলেন- খোরশেদ আলী ও শাকিল এলাকার খারাপ প্রকৃতির লোক।

মাদকাসক্ত মাদকসেবনকারী এরা বিভিন্ন সময়ে আমার কাছে টাকা দাবি করে বলেন আমি যদি তাদের দাবিকৃত টাকা না দেই তাহলে ওরা আমার ভাগ্নীকে অপহরণ করে বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে হুমকি দেয়।

তাই আমি একজন সংখ্যালঘু ও নিরীহ প্রকৃতির লোক হওয়ার কারণে সমাজে ভালো ভাবে বসবাস করার জন্য তাদের দাবি মতো টাকা দিয়ে দিই।

এরপূর্বে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে ধামরাই উপজেলার কুল্লা ইউনিয়নের বড় কুশিয়ারা গ্রামে এ’সন্ত্রাসী হামলা ঘটে।

এ’সময় তিনি আরো বলেন গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে খোরশেদ ও শাকিল সহ আরো ৮/১০ লোক লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র কনিয়ে আমার বাড়িতে জোরপূর্বক প্রবেশ করে মোটা অংকের টাকা দাবি করে।

আমি তাদের দাবিকৃত টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগারাজ করে।একপর্যায়ে আমার ভাগ্নীর শোবার ঘরে যাওয়ার চেষ্টা করলে আমি বাঁধা দিলে আমাকে এলোপাথাড়ি মারধর করে।

মারধরের একপর্যায়ে খোরশেদ হত্যার উদ্দেশ্যে লাঠি দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করে।

এ’সময় আমার ডাক-চিৎকারে আশে পাশের লোক এগিয়ে এসে আমার ভাগ্নীকে তাদের হাত থেকে রক্ষা করে এবং সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার সময় আমার ভাগ্নীকে রাস্তা ঘাটে একা পেলে অপহরণ করবে এবং আমাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে যায়।

এ’বিষয়ে ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) শ্রী নির্মল কুমার দাস বলেন- সংখ্যালঘু পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ