আজ ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং

করোনাকালের নববর্ষ- ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

 

রনজিত কুমার পাল (বাবু)
নিজস্ব প্রতিবেদক

মহামারী নভেন করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরে থাকার কারণে চারুকলায় উন্মাদনা নেই, রমনার বটমূলে ছায়ানটের গান নেই, মঙ্গল শোভাযাত্রা নেই, পান্তা ইলিশ নেই, ধামরাইয়ের হাজরার শোভাযাত্রাও নেই, নতুন কাপড় নেই, মানুষের মুখে হাসি নেই, ঘরে স্বজন নেই, মেলা নেই, বাতাসা নেই, গরম জিলাপি নেই, ঢাক নেই, ঢোল নেই, তালপাতার বাঁশি নেই, রঙিন ঘূর্ণি নেই, হাওয়াই মিঠাই নেই, রাস্তাঘাটে মানুষ নেই, রবীন্দ্রনাথ নেই, লালন নেই, নজরুল নেই।
এত নেই আর নেইয়ের মধ্যে এসেছে আমাদের নববর্ষ। আমাদের একমাত্র অসাম্প্রদায়িক উৎসব। চারদিকে মৃত্যুভয়ে আক্রান্ত মানুষ, যন্ত্রণাক্লিষ্ট অসুস্থ শরীর, উদ্বিগ্ন স্বজন। আক্রান্ত মানুষ সামনে রেখে শুভেচ্ছা জানানো যায় না, বিপন্ন মানুষের মধ্যে উৎসব হয় না। এ কারণে নতুন বছরের শুভেচ্ছাও নেই।

রাজধানী ঢাকা সহ ঢাকা জেলার ধামরাই, সাভার, কেরানীগঞ্জ, দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার সব স্হানেই সকল প্রকার বৈশাখের অনুষ্ঠান সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণে বন্ধ ছিল। তার মানুষ কায়মনোচিত্তে প্রার্থনা জানিয়েছে করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে বিশ্ববাসীকে রক্ষা করার জন্য এবং সোনালী সুন্দর আতঙ্ক মুক্ত দিন ফিরে আসুক সেই আশায় আজকের বিবর্ণ বৈশাখ -১৪২৭ বঙ্গাব্দ স্মৃতির অতলে হারিয়ে যাক এ’প্রত্যাশায় প্রতিক্ষায় মানুষ।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ