আজ ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুন, ২০২১ ইং

চোর পুলিশ খেলায় মেতে উঠেছে লালমনিরহাটের মানুষ নেই সামাজিক দুরত্ব

 

মজিদুল হক লালমনিরহাট(সদর) প্রতিনিধি

করোনাভাইরাসের প্রকোপে সারাদেশ এখন উদ্বেগ অার উৎকণ্ঠায় ঠাসা। সাধারন মানুষের চোখ এখন টেলিভিশন, সংবাদপত্র ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে।
বারবার পরখ করে নিচ্ছে অাক্রান্ত অার মৃতের সংখ্যা।
সরকার কতৃর্ক অনেক সচেতনতামূলক নির্দেশনা থাকলে মানছে না লালমনিরহাটের সিংহভাগ মানুষ। এটা তাদের কাছে মনে হচ্ছে বিনোদন। অাইন শৃংঙ্খলা বাহিনী কঠোর থাকলেও কোন কাজেই অাসছে না অসচেতন মানুষদের ক্ষেত্রে। লালমনিরহাট জেলা প্রসাশন কর্তৃক কঠোর নির্দেশনা দেয়ার পরও অবাধে চলছে সাধারন মানুষ।

জেলা প্রশাসন থেকে অাদেশ ছিলো নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যের দোকান গুলো সকাল ৭টা থেকে দুপর ১টা পর্যন্ত যেন খোলা থাকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা শর্তে এই নির্দেশনা দেয়া হয়। তবে দোকানদাররা নিয়ম মানছে শুধু সময়ের। এই সময়ের মধ্যে হাট-বাজার গুলো যেন হয় উঠে উৎসবের ময়দান।
লালমনিরহাট সদরের কয়েকটি বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাজার গুলোতে উপচে পড়া ভিড় নেই কোন সামাজিক দুরত্ব। কোথাও কোথায় অাবার তামাকের বেচাকেনা হতেও দেখা যায়। তবে অার একটি লক্ষণীয় বিষয় হলো অাইন শৃঙ্খলা বাহিনী যখন অাসছে কেউ কেউ পালিয়ে যাচ্ছে অাবার কেউ কেউ সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করছে। কিছুক্ষণ পর অাইন শৃঙ্খলা বাহিনী চলে গেলে অাবার ঐ অাগের চলাফেরা শুরু। এটা যেন দেখলে মনে হয় চোর পুলিশ খেলা।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মুঠোফোনে বলেন” অামরা সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতকরনে ব্যাপকভাবে অভিযান চালাচ্ছি। এবং সাধারন মানুষদের কোভিড ১৯ সম্পর্কে সচেতন করছি। তাকে মানুষের এই পালানো ও অাপনারা চলে যাওয়ার পর অাবার তারা কোন নিয়ম মানছে না এরকম একটি প্রশ্ন রাখলে তিনি বলেন” অামরা এটি মোকাবেলায় সর্বাত্বকভাবে কাজ করছি এবং সাধারন মানুষদের এ বিষয়ে সচেতন হওয়ার তাগিদ দেন তিনি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ