আজ ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৯ লাখ টাকা ডাকাতির ৩ মুলহোতা গ্রেপ্তার

মোহাম্মদ আব্দুস সালাম রুবেল

আশুলিয়া ও বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তিন আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ-পরিদর্শক কাউসার সুলতান।

এর আগে শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) ভোর রাতে আশুলিয়া কালিয়াকৈর ও নাটোরে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার হলেন শহিদুল ইসলাম, আনিসুর রহমান ও বকুল আলী। তারা সবাই নাটোরের সিংড়া থানার বাসিন্দা।

ডিবি পুলিশ জানায়, ঈদুল আজহায় নারায়ণগঞ্জের নীলা থেকে গরু বিক্রি করে ফিরছিল ৭ জন গরু ব্যবসায়ী। নাটোর পৌঁছে দেওয়ার জন্য রাত ৯ টার দিকে ২০০ টাকা করে ভাড়া ঠিক করে তাদের ডাকাতি কাজে ব্যবহার করা একটি ট্রাকে উঠিয়ে ঢাকার বিভিন্ন সড়কে ঘোরাতে থাকে। অনুমান রাত দু’টার দিকে তারা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের কালামপুরে নিয়ে যায়। এখানে ডাকাতরা গরু ব্যবসায়ীদের হাত-পা বেঁধে ফেলে। ব্যবসায়ীদের কাছে থাকা গরু বিক্রির টাকা দিতে রাজি না হলে মধ্যে একজনকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে তাদের কাছে থাকা গরু বিক্রির ৯ লাখ টাকার বেশি লুট করে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হলে ডাকাতরা ভয় পেয়ে গরু ব্যবসায়ীদের ট্রাক থেকে রাস্তার পাশে ফেলে দেয়। পরে তারা আশুলিয়ায় অবস্থান নেয়। এ ঘটনায় চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের ১১ তারিখে থানায় একটি মামলা (মামলা নং ১৮) দায়ের হয়। এই মামলার প্রেক্ষিতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডাকাতদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে অভিযানে নামে ডিবি পুলিশ।

অভিযানে প্রথমে নাটোরের সিংড়া এলাকা থেকে ডাকাতি কাজে ব্যবহার করা ট্রাকসহ শহিদুল ইসলাম নামে ওই ট্রাকের মালিককে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যমতে কালিয়াকৈর এলাকার পল্লী বিদ্যুৎ থেকে আনিসুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়। সবশেষে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার থেকে বকুল আলীকে গ্রেফতার করা হয়।

ঢাকা জেলা উত্তরের গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপ-পরিদর্শক কাউসার জানান, গ্রেফতারকৃতরা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের মুলহোতা। আজ দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হলে তিন ডাকাত আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করে। ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবুল বাশার বলেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাটোর ও আশুলিয়া ডাকাত দলের মুলহোতাসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে। ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হাসান সরদার বলেন ধামরাই থানার ডাকাতি মামলাটি গোয়েন্দা পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়ে ছিলো যেভাবে হোক আসামীদের গ্রেপ্তারের করার জন্য। তারই ধারাবাহিকতায় ডাকাতদলের মুলহোতাসহ ডাকাতি কাজে ব্যবহার করা ট্রাকটি উদ্ধার করা হয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ