আজ ২রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

সরাইলে অবৈধ দখল-ভরাটের রামরাজত্ব

 

 

হাসনাত কাইয়ূম,সরাইল প্রতিনিধি :

 

জাতীয় দূর্যোগ করোনা ভাইরাস আতঙ্কে যখন সারাদেশে অঘোষিত লকডাউন চলছে, সেই মূহুর্তে এলাকার অসাধু কতিপয় জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে অবৈধ চুক্তির মাধ্যমে সরকারি বিশাল জায়গা দখল করে সেখানে ড্রেজার মেশিনে বালু ফেলে ভরাট করছে প্রভাবশালী দখলদাররা।

আজ শুক্রবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে সরেজমিন দেখা যায়, সরাইল-অরুয়াইল আঞ্চলিক সড়কের পাশে সরকারি খাল ও পানি নিষ্কাশনের নালা’য় বালু ফেলে উপজেলার কালিকচ্ছ ইউনিয়নের বিশুতারা এলাকায় এই অবৈধ দখল ও ভরাটের রামরাজত্ব চলছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবু তালেব ও তাঁর ভাইয়ের সহযোগিতায় এ ভরাট চলছে। সরকারি এ বিশাল জায়গা ভরাটের পর সেখানে প্লট বানিয়ে বিক্রি করবে দখলদাররা, এমনটি জানিয়েছেন এলাকার লোকজন।

তবে ইউপি সদস্য আবু তালেব দাবি করেন, সেই সরকারি জায়গা ভরাটের সঙ্গে তাঁর কোনো সম্পৃক্ততা নেই। সেখানে সরকারি জায়গার পাশে মালিকানা জায়গাও রয়েছে। ইউপি সদস্য জানান, সেই জায়গার মালিকেরা ক’দিন আগে সরকারি জায়গার পাশাপাশি তাদের জায়গা ভরাটের ব্যাপারে তাঁর সঙ্গে আলাপ করলেও তিনি সম্মতি দেননি।

স্থানীয় লোকজন জানান, করোনা প্রতিরোধে উপজেলা প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা যখন ব্যস্ত সময় পার করছেন এবং করোনায় সরকারি দফতর বন্ধের সুযোগে প্রভাবশালী দখলদাররা এখানে অবৈধ দখলের পর সরকারি জায়গা বালু ফেলে ভরাট করছে।

এদিকে দখলদারদের মধ্যে দুইজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সেখানে খালের পাড়ে আমাদের মালিকানা কৃষি জমি রয়েছে। সামনের সরকারি জায়গা ভরাট ছাড়া সেখানে ঘরবাড়ি নির্মাণ সম্ভব নয়। তাই আমরা কতিপয় জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে চুক্তি করেই এখানে ভরাটের ব্যবস্থা করেছি। তাঁরা (নেতারা) বলে দিয়েছেন “করোনায় সরকারি বন্ধের মধ্যে এখানে ভরাটের কাজ শেষ করতে। প্রশাসন ও সাংবাদিক তাঁরা সামলাবেন। তাই আমরা ড্রেজার মেশিনে রাত-দিন ভরাটের উদ্যোগ নিয়েছি।

জানতে চাইলে কালিকচ্ছ ইউনিয়ন ভূমি অফিসার আমিনুল ইসলাম জানান, বিষয়টি সরেজমিনে দেখে অবশ্যই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। প্রয়োজনে কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে মামলা করা হবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ