আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করছেন আত্রাইয়ের সংবাদকর্মীরা

মোঃ ফিরোজ হোসাইন নওগাঁ প্রতিনিধি:

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় নওগাঁর আত্রাই প্রসক্লাবের কর্মরত সংবাদকর্মীরা জীবনর ঝুঁকি নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করছেন। নেই কোন তাদের সুরক্ষা পোষাক। করোনাভাইরাস ছোঁয়াচে, তাই ব্যক্তি থেকে এবং এক জনগোষ্ঠী থেকে অন্য জনগোষ্ঠীতে ছড়িয়ে
পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয় বাংলাদেশেও মৃত্যু হয়েছে।

সরকার করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে জনগনকে ঘর থেকে বাহির হতে নিষেধ করেছেন। সারাদেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। তবুও থেমে নেই নওগাঁর আত্রাই প্রেসক্লাবের সংবাদকর্মীরা। এ সংবাদকর্মীরা দেশের সার্বিক অবস্থা, বাজার মনিটরিং, ভ্রাম্যমান আদালতের সংবাদ সংগ্রহের বিভিন্ন কাজে বাড়ির বাইরে থাকছেন। কোনা রকম ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ (পিপিই) ছাড়াই নিয়মিত পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তারা। এমতাবস্থায় নোভেল করোনা ভাইরাস সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছেন সংবাদকর্মীরা। কর্তব্য পালন করতে গিয়ে অসংখ্য মানুষের মুখোমুখি হতে হচ্ছে সংবাদকর্মীদের। তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে প্রয়াজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কিংবা সরকার কেউ করছেনা। বাধ্য হয়ে কর্মরত আত্রাই প্রসক্লাবের সংবাদকর্মীরা বিনা প্রোটাকশন সংবাদের খোঁজে মাঠঘাট-গ্রামের অলি-গলিতে সংবাদ সংগ্রহের জন্য চষে বেড়াচ্ছেন।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দায়িত্ব পালনকারী সাংবাদিকদের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ দিতে আইনজীবী জে. আর. খান রবিন জনস্বার্থে হাইকার্টে ২৩ মার্চ রিট দায়ের করেন। আদালত নিজ খরচে স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের সংবাদকর্মীদের পিপিই সরবরাহের আদেশ দেন। কিন্তু আজও সরবরাহ করা হয়নি পিপিই।

আত্রাই প্রসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসাইন সেটু বলেন, আমাদের আত্রাই প্রসক্লাব দেশের জনপ্রিয় প্রায় সবকটি প্রিন্ট মিডিয়ার ১৩জন সংবাদকর্মী আছেন। তারা করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাহসিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তাদের প্রতিষ্ঠানগুলা সংবাদকর্মীদের সুরক্ষার জন্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। যা অত্যান্ত দুঃখজনক। তিনি সংবাদকর্মীদের সুরক্ষার জন্য পিপিই সরবরাহ করার জোর দাবি জানান।

আত্রাই প্রসক্লাবের সভাপতি মো. রুহুল আমিন বলেন, সংবাদকর্মীরা সবসময় অবহেলার শিকার। সারাদেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। তবুও থেমে নেই নওগাঁ জেলার আলোচিত একটি জনপদ আত্রাইয়ের সংবাদকর্মীরা। আদালতের আদেশ দেয়ার পর মিডিয়া হাউসগুলোর পিপিই সরবরাহর কোন লক্ষণ দেখছি না। মিডিয়া হাউসগুলোর উচিত নিজের পরিবারের সদস্য হিসেবে নিজ নিজ সংবাদকর্মীদের পিপিই সরবরাহ করা। তাতে নিজের পরিবারের লোকগুলোই সুরক্ষিত থাকবে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ