আজ ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

হত্যার দায় এড়াতে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের

 

নিজস্ব প্রতিবেদক
শরীয়তপুর :

জেলার গোসাইরহাট উপজেলায় নাগেরপাড়া ইউনিয়নে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা মামলায় হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগীরা জানান, নাগেরপাড়া ইউনিয়নের ঢাকেরহাটি গ্রামে কমলা বেগম নামের এক মহিলার মিথ্যা মামলায় হয়রানির শিকার হয়েছে রাজিব সরদার সহ তাদের পরিবারের অনেকেই।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, তাদের পরিবারের সদস্য ইলিয়াস কাঞ্চন টিটু হত্যার বিচার যেন না হয় সেজন্য আসামীপক্ষরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই মিথ্যা মামলা সাজিয়েছে।

ভুক্তভোগীদের বিরুদ্ধে মামলায় যে অভিযোগ উঠেছে তার মধ্যে একটি হচ্ছে, মামলার বাদি কমলা বেগমের হাত তারা ভেঙ্গে দিয়েছে। কিন্তু ভুক্তয়োগীরা জানায়, মামলার প্রায় দেড় মাস আগের থেকেই মামলার বাদি কমলা বেগমের হাত ভেঙ্গে যায়।

বাদীনীর বাবা মোতালেব বেপারী গোসাইরহাটের মোহন হত‍্যা মামলার আসামি সহ আরো দুইটি হত্যা মামলার আসামি। টিটু হত্যার ৩নং আসামিও এই মোতালেব বেপারী।

এমন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও মিথ্যা মামলার বিচার করার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করেন ভুক্তভোগীরা। এমন মিথ্যা মামলার স্বিকার যেন আর কারোর না হতে হয় সেই দাবিও তোলেন তারা। মামলা আসামীরা হাইকোর্ট থেকে জামিন নেয়ার পর থেকেই এলাকায় আতঙ্কের মধ্যে আছেন। দ্রুত এই মিথ্যা মামলার সমাধান চান তারা। এর আগেও দলিল খা নামের একজন স্থানীয় থানায় লুটপাট ও ভাংচুরের অভিযোগ করলে পুলিশ তদন্ত করে এর সত্যতা পায়নি।

টিটু হত্যার বিচারের দাবিতে নাগেরপাড়া ইউনিয়নের বেশ কয়েকবার বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করা হয়। এছাড়াও গত ২২ সেপ্টেম্বর নাগেরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে সংবাদ সম্মেলনও করে ইলিয়াস কাঞ্চন টিটুর পরিবার।

প্রসঙ্গত, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে নাগেরপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল সরদারের ছেলে স্বাস্থ্যকর্মী ইলিয়াস কাঞ্চন টিটু (৩৯) তার ঘরের খাটের সঙ্গে পা ঝুলন্ত অবস্থায় পড়ে থাকা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ