আজ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা মার্চ, ২০২১ ইং

ববির সেই শিক্ষার্থীর শরীরে আঘাতের চিহ্ন

খান ইমরান , বরিশাল প্রতিনিধি

 

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী জান্নাতুল নওরিন উর্মিকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জেনারেল ওয়ার্ড থেকে কেবিনে নেয়া হয়েছে।

শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় তিনি মানসিকভাবেও বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। এদিকে বৃহস্পতিবার (০৫ মার্চ) দুপুর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোনো খোঁজ-খবর না নেয়ার অভিযোগ করেছেন স্বজনরা।

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ইউনিট-২ এর সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মো. মাহবুব আলম জানান, উর্মির শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো বস্তুর আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এছাড়া পায়ের বিভিন্ন স্থানেও ভারী বস্তুর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আঘাতের কারণে শারীরিকভাবে অসুস্থতার পাশাপাশি তিনি মানসিকভাবেও ভেঙে পড়েছেন।

তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সকালে তার শ্বাসকস্ট দেখা দেয়। এরপর তাকে অক্সিজেন দেয়া হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, নির্যাতনের ঘটনায় আজ দুপুর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে নির্যাতিতার সঙ্গে কেউ যোগাযোগ করেনি।

গত ১ মার্চ গণিত বিভাগের পরীক্ষা শেষে হল থেকে বের হওয়ার পর প্রশাসনিক ভবনের সিঁড়িতে উর্মিকে মুখোশধারী বেশ কয়েকজন নির্যাতন করে বলে অভিযোগ করে উর্মি ও তার পরিবার। এ ঘটনায় নিরাপত্তার অভাবে তিনদিন বাসায় প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয় তাকে। অবস্থার অবনতি হলে বুধবার দুপুরে তাকে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ বিষয়টি লিখিতভাবে জানানো হয়নি বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর।

২০১৮ সালের ১৭ মার্চ উর্মির বাবা অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান মৃধা তার মেয়ে উর্মিকে হত্যার হুমকির কথা উল্লেখ করে নগরীর বিমানবন্দর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরও সংবাদ